১২ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ২৬ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

স্মৃতিতে ২০১১’র বিশ্বকাপ ফাইনাল, ধোনির ছক্কা হাঁকানো নিয়ে মাতামাতি নাপসন্দ গম্ভীরের

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 2, 2020 1:53 pm|    Updated: April 2, 2020 1:53 pm

Gautam Gambhir irked by 'obsession' with MS Dhoni six

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজয়ের ৯ বছর। আজকের দিনেই ২০১১ সালে ধোনির নেতৃত্বে দ্বিতীয়বার ক্রিকেট বিশ্বকাপ জিতেছিল ভারত। ওয়াংখেড়ের ফাইনালের সেই রাত এখনও আসমুদ্রহিমাচলকে নস্ট্যালজিক করে দেয়। মাহির সেই ছক্কা হাঁকিয়ে ম্যাচ জয়ের দৃশ্য আজও কেউ ভোলেননি। আরও একজন সেই দৃশ্য ভুলতে পারেননি। কিন্তু সেই ছক্কার জন্য দেশবাসীর অতিরিক্ত মাতামাতি নাপসন্দ তাঁর। তিনি হলেন গৌতম গম্ভীর (Gautam Gambhir)। ফাইনালের অন্যতম নায়ক। তাঁর ৯৭ রানের ঝকজকে ইনিংস শ্রীলঙ্কাকে হারাতে অনেকটাই সাহায্য করেছিল ভারতকে।

ঠিক কী বলেছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা সাংসদ? গম্ভীরের মতে, গোটা বিশ্বকাপটাই দলগত প্রচেষ্টায় জিতেছিল ভারত। তাঁর ফাইনালে সেঞ্চুরি মিস করার আক্ষেপ রয়েছে। তবে ক্রিকেটার থেকে সাপোর্ট স্টাফ, প্রত্যেকের মিলিত প্রয়াসে বিশ্বজয় সম্ভব হয়েছিল। ধোনির (Mahendra Singh Dhoni) ছক্কা হাঁকানো নিয়ে তাই মাতামাতি করতে চান না গম্ভীর। ২০১১ শুধু নয়, ২০০৭ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালেও গম্ভীরের হাফ সেঞ্চুরি পাকিস্তানের বিরুদ্ধে জিততে সাহায্য করেছিল ভারতকে। কিন্তু বিশ্বজয়ের নবম বর্ষপূর্তিতে একটি ওয়েবসাইটে ধোনির ছক্কা হাঁকানো নিয়ে লেখার জন্য একটু বিরক্তই হয়েছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার

[আরও পড়ুন: আফ্রিদির কাজের সমর্থন করে নেটিজেনদের রোষের মুখে যুবরাজ, মোক্ষম জবাব দিলেন তারকা]

অনেক ক্রিকেট বিশেষজ্ঞই পরবর্তীকালে বলেছিলেন, ফাইনালে ধোনির ছক্কা, গোটা টুর্নামেন্টে যুবরজারে পারফরম্যান্সের নিচে গম্ভীরের নাছোড় লড়াই চাপা পড়ে গিয়েছে। ফাইনালে ৯১ রান করার সুবাদে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ পুরস্কার পেয়েছিলেন ধোনি। কিন্তু গম্ভীরের অবদান মনে রাখেননি বিচারকরা। সে আক্ষেপ আজও রয়ে গিয়েছে গম্ভীরের মনে। ফাইনালে গুরুত্বপূর্ণ ৯৭ রানের ইনিংস খেলেও প্রাপ্য সম্মান পাননি বলে আক্ষেপ প্রাক্তন ক্রিকেটারের।

[আরও পড়ুন: ‘সৌরভের মতো সমর্থন ধোনি-কোহলির থেকে পাইনি’, অভিমান উগরে দিলেন যুবরাজ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে