৭ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ২৫ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৩০ কোটি ভারতবাসীর স্বপ্ন নিয়ে চাঁদের দেশের পাড়ি দিয়েছে চন্দ্রযান ২। সোমবার, বেলা ২.৪৩ মিনিটে উড়ান ভরে ‘বাহুবলী’। সিনেমার চরিত্র নয়, বাহুবলী জিএসএলভি মার্ক-৩ রকেটের নাম। ইসরোর ওই রকেটে চেপেই চাঁদের অন্ধকার দিকের রহস্য উদঘাটনের জন্য রওনা দিয়েছে চন্দ্রযান ২। আর সফল উৎক্ষেপনের পরই ইসরোকে অভিনন্দন জানাচ্ছে গোটা দেশ। বীরেন্দ্র শেহওয়াগ থেকে শচীন তেণ্ডুলকর, সকলেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভারতের এমন সাফল্যে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। কিন্তু হাজার অভিনন্দনের ভিড়ে নজর কেড়েছে হরভজন সিংয়ের টুইট। কারণ দেশের প্রশংসার পাশাপাশি পাকিস্তানকেও ঠুকেছেন প্রাক্তন ভারতীয় স্পিনার।

সোমবার সন্ধে নাগাদ একটি টুইট করেন ভাজ্জি। লেখেন, “কিছু কিছু দেশের পতাকায় চাঁদের ছবি থাকে।” লাইনটির নিচে বেশ কয়েকটি দেশের পতাকার ছবিও দেন তিনি। তার মধ্যে রয়েছে পাকিস্তানও। পরের লাইনে লেখা, “আর কিছু কিছু দেশের পতাকা চাঁদে থাকে।” নিচে আরেমিকা, ভারত, চিন ও রাশিয়ার পতাকার ছবি। এই চারটি দেশই সফলভাবে চন্দ্রাভিযান করেছে। পাকিস্তানের মতো দেশ যে চন্দ্র অভিযানে অক্ষম সেটাই বুঝিয়ে দিতে চেয়েছেন তিনি। ভাজ্জির টুইট নিমেষে ভাইরাল হয়ে যায়। ভারতীয় নেটিজেনরা তাঁর এমন মশকরার প্রশংসাই করেছেন। তবে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের ইউজাররাও পালটা দিতে ছাড়েননি। অনেকেই কটাক্ষ করে লিখেছেন, একদিকে চন্দ্রাভিযানে যাচ্ছে দেশ, আর অন্যদিকে সে দেশেই শৌচাগারের অভাব। প্রকাশ্যেই শৌচকর্ম করে সকলে পরিবেশ নোংরা করে। যদিও এনিয়ে আর কোনও মন্তব্য করেননি ভাজ্জি।

[আরও পড়ুন: ভারতীয় দলের কোচ হতে চেয়ে আবেদন জয়বর্ধনের! লড়াইয়ে একাধিক হেভিওয়েট]

এদিকে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ইসরোকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি, চেতেশ্বর পূজারারাও। ইসরো জানিয়েছে, উৎক্ষেপণের পর পৃথিবীর চারদিকে ঘুরপাক খেয়ে চাঁদের কক্ষপথে ঢুকবে চন্দ্রযান-২। পূর্ব নির্ধারিত সময়মতোই আগামী সেপ্টেম্বর মাসের ৬ তারিখ ‘লুনার সারফেস’ বা চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করবে যানটি। তবে জ্বালানি লিকের দরুন প্রথমবার বা ১৫ জুলাই-র উৎক্ষেপণ বাতিল হয়ে যাওয়ায় সমস্ত প্রক্রিয়ায় কিছু রদবদল করছেন বিজ্ঞানীরা। সেবারে উৎক্ষেপণ থেকে অবতরণ পর্যন্ত ৫৪ দিন সময় ধার্য করা ছিল। যার মধ্যে ২২ দিন পৃথিবীর কক্ষপথে (আর্থ অরবিট) ঘুরপাক খেত চন্দ্রযান। পরবর্তী ২৮ দিন চাঁদের কক্ষপথে (লুনার অরবিট) ঘোরার কথা ছিল যানটির। শেষের ৪ দিন চাঁদের ‘লোয়ার অ্যাটমোস্ফিয়ারে’ গতি কমিয়ে চাঁদের দক্ষিণ মেরুর জমিতে অবতরণ করত চন্দ্রযান-২। কিন্তু পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ‘লুনার অরবিটের’ সময় কমিয়ে ২০ দিন করা হয়েছে। ফলে এবার সমগ্র অভিযানের সময়সীমা দাঁড়িয়েছে ৪৬ দিন। এখন বাহুবলীর সফলভাবে চন্দ্রপৃষ্ঠে পা রাখার অপেক্ষায় দিন গোনা শুরু হয়েছে ভারতীয়দের।

[আরও পড়ুন: লক্ষ্য টি-২০ বিশ্বকাপ, ধোনিকে অবসর নিতে বারণ করছে টিম ম্যানেজমেন্টই]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং