২১ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ৪ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

ওয়েলিংটনের সবুজ গালিচায় পা হড়কাল ভারত, দ্বিতীয় দিনের শেষে অ্যাডভান্টেজে কিউয়িরা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 22, 2020 11:55 am|    Updated: February 22, 2020 11:55 am

An Images

ভারত: ১৬৫ (রাহানে ৪৬, আগরওয়াল ৩৪)
নিউজিল্যান্ড: ২১৬-৫ (উইলিয়ামসন ৮৯, টেলর ৪৪)
নিউজিল্যান্ড প্রথম ইনিংসে ৫১ রানে এগিয়ে।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ওয়েলিংটন টেস্টে ব্যাটিং বিপর্যয়ের জেরে বিপাকে ভারত (Indian Cricket team)। দ্বিতীয় দিনের শেষে রীতিমতো চালকের আসনে নিউজিল্যান্ড। দিনের শেষে ভারতের ১৬৫ রানের জবাবে প্রথম ইনিংসে নিউজিল্যান্ডের স্কোর ৫ উইকেটে ২১৬ রান। ভারতের প্রথম ইনিংসের থেকে ইতিমধ্যেই ৫১ রানে এগিয়ে গিয়েছে কিউয়িরা।

Kanve-V
সুইং আর বাউন্সের সামনে যে ভারতের বিশ্বখ্যাত ব্যাটিং লাইন-আপ কতটা অসহায়, তা আরও একবার প্রমাণ হয়ে গেল বেসিন রিজার্ভের সবুজ গালিচায়। টিম সাউদি এবং কাইল জেমিসনের জুটিতে টিম ইন্ডিয়ার ব্যাটিং লাইন-আপকে রীতিমতো ধরাশায়ী করে দিল। টিম ইন্ডিয়ার প্রথম পাঁচ উইকেট পড়েছিল ১০১ রানে। শেষ পাঁচ উইকেট পড়ল মাত্র ৪৩ রানের ব্যবধানে। মাঝখানে সহ-অধিনায়ক অজিঙ্ক রাহানে খানিকটা প্রতিরোধ গড়েছিলেন। কিন্তু, তাতেও খুব একটা লাভ হল না। প্রথম ইনিংসে টিম ইন্ডিয়া অল-আউট হল মাত্র ১৬৫ রানে। দলের হয়ে রাহানে সর্বোচ্চ ৪৬ রান করেন। ময়ঙ্ক আগরওয়াল করেন ৩৪ রান। পন্থ আউট হন ১৯ রানে। যদিও, দীর্ঘদিন পরে দলে ফেরা পন্থ, রাহানের ভুলেই রান আউট হন। তাতে বেজায় ক্ষুব্ধও হন টিম ইন্ডিয়ার উইকেটরক্ষক। পন্থ এবং রাহানের পর আর কোনও ব্যাটসম্যান সেভাবে দাঁড়াতেই পারেননি। কিউয়িদের হয়ে চারটি করে উইকেট নেন সাউদি এবং জেমিসন।

[আরও পড়ুন: মধুর প্রতিশোধ, পুনম-শিখার আগুনে বোলিংয়ে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু ভারতের]

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা ভাল হয়নি নিউজিল্যান্ডেরও। কিউয়িদের প্রথম উইকেট পড়ে মাত্র ২৬ রানে। ১১ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন টম লেথাম। এরপরই ইনিংসের হাল ধরেন অধিনায়ক উইলিয়ামসন। উলটোদিক ব্লান্ডেল আউট হয়ে গেলেও ধীরস্থির মস্তিষ্কে নিজের দলকে এগিয়ে নিয়ে যান কেন। শততম টেস্ট খেলা রস টেলরও ধৈর্য ধরে ভারতীয় বোলারদের মোকাবিলা করেন। কেন ৮৯ এবং রস ৪৪ রানে আউট হন। দিনের শেষে নিউজিল্যান্ড ৫ উইকেটের বিনিময়ে ২১৬ রান করে। ভারতের হয়ে ইশান্ত শর্মা ৩টি উইকেট নেন। মহম্মদ শামি এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিন পান একটি করে উইকেট।

Advertisement

Advertisement

Advertisement