৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

মোহনবাগান: ৪ (সুহের, চামোরো, নাওরেম, গঞ্জালেস)
জর্জ টেলিগ্রাফ: ০
সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ডার্বি ড্রয়ের পর থেকেই ঘরোয়া লিগে চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড়ে থাকতে প্রতিটি ম্যাচে জয়কেই পাখির চোখ করেছেন কিবু ভিকুনা। আর সেই লক্ষ্যে আরও একধাপ এগিয়ে গেল মোহনবাগান। রবিবার জর্জ টেলিগ্রাফকে হেলায় হারিয়ে আপাতত লিগ তালিকার শীর্ষে উঠে এল সবুজ-মেরুন ক্লাব।

[আরও পড়ুন: কিশোরী সাঁতারুকে যৌন হেনস্তায় অভিযুক্ত কোচের ৬ দিনের পুলিশ হেফাজত]

গতবার ঘরোয়া লিগেও এই জর্জের বিরুদ্ধে ৪-০ গোলে জিতেছিল মোহনবাগান। কিন্তু চলতি টুর্নামেন্টে জর্জের কাছে পরাস্ত হয়েছিল ইস্টবেঙ্গলের মতো হেভিওয়েট দল। তাই ট্রফি জয়ের দৌড়ে প্রতিপক্ষকে হালকাভাবে নেওয়ার কোনও প্রশ্নই ছিল না। প্র্যাকটিসেও তার প্রতিফলন ঘটেছে। বারবার ফুটবলারদের কাছে ছুটে গিয়ে কোচ কিবু বুঝিয়েছেন, এমন জায়গায় বল এলে কী করতে হবে। নিরাশ করেননি তাঁর শিষ্যরা। প্রথম থেকেই ধারে ও ভারে পিছিয়ে থাকা জর্জের উপর কতৃত্ব বজায় রেখেছিলেন গঞ্জালেস-চামোরোরা। শুরুতেই গোল করে দলকে এগিয়ে দেন সুহের। দ্বিতীয়ার্ধে হয় আরও তিনটে গোল। হেডারে দুর্দান্ত গোল করে চামোরো আরও একবার বুঝিয়ে দিলেন তাঁকে ডার্বিতে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত খুব একটা সঠিক ছিল না। নাওরেম এবং গঞ্জালেস আরও দুটি গোল করে জর্জ ডিফেন্সকে পুরোপুরি ভেঙে দেন।

মাঠে বল গড়ানোর আগে ভিকুনার চিন্তা যত না ছিল প্রতিপক্ষকে নিয়ে, তার চেয়ে ঢের বেশি ছিল ঘরের মাঠ নিয়ে। এই মাঠেই প্রথম ম্যাচে মুখ থুবড়ে পড়তে হয়েছিল গতবারের চ্যাম্পিয়নকে। পরের ম্যাচ ড্র হয়েছিল। তাই ঘরের মাঠে জয়ে ফেরার তাগিদটা আরও বেড়ে গিয়েছিল। শেষমেশ ছুটির দিনে ভরা গ্যালারির সামনেই দারুণ জয় পেল বাগান। রেফারির বাঁশি বাজতেই জ্বলল সবুজ-মেরুন মশাল। ধোঁয়ায় ঢাকল বৃষ্টিভেজা মাঠ। ১১ পয়েন্ট নিয়ে আপাতত লিগ তালিকার শীর্ষে পৌঁছে গেল বাগান। এই ম্যাচের পর যে লিগের লড়াই আরও জমে উঠল, তা বলাই বাহুল্য।

[আরও পড়ুন: নিয়মভঙ্গের জন্য কার্তিককে নোটিস বোর্ডের, কী উত্তর দিলেন উইকেটকিপার?]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং