৯ ফাল্গুন  ১৪২৬  শনিবার ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১০ ফেব্রুয়ারি শুরু চ্যাম্পিয়নশিপ। আর তাতে অংশ নিতে পাকিস্তান পৌঁছে গেল ভারতীয় কবাডি দল। অথচ গোটা ঘটনা টেরও পেল না কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রক। এমন ঘটনায় শুরু হয়ে তুমুল বিতর্ক।

প্রথমবার পাকভূমে আয়োজিত হচ্ছে কবাডি চ্যাম্পিয়নশিপ। লাহোর, ফৈসলাবাদ এবং গুজরাট- পাকিস্তানের এই তিন শহরে বসছে টুর্নামেন্টের আসর। সোমবার শুরু হয়ে চলবে ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। সেই ইভেন্টে ভারতের খেলা নিয়ে প্রথম থেকেই সংশয় ছিল। ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে বাড়তে থাকা তিক্ততার কারণেই সে দেশে দল পাঠানো নিয়ে ধন্দে ছিল ক্রীড়ামন্ত্রক। অথচ এমন পরিস্থিতিতে সরকার ও জাতীয় ফেডারেশনকে অন্ধকারে রেখেই ইভেন্টে যোগ দিতে ওয়াধা বর্ডার হয়ে পাকিস্তানে পৌঁছায় ভারতীয় দল। জাতীয় কবাডি ফেডারেশন জানিয়েছে, পাকিস্তানে আয়োজিত চ্যাম্পিয়শপিশে অংশ নেওয়ার জন্য কোনও খেলোয়াড়কে ছাড়পত্র দেওয়া হয়নি। তা সত্ত্বেও কীভাবে তাঁরা এই কাণ্ড ঘটালেন, তাতে বিস্মিত ও ক্ষুব্ধ ফেডারেশন।

[আরও পড়ুন: ফাইনালে বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের আচরণে ক্ষুব্ধ ভারত অধিনায়ক, ভাইরাল ভিডিও]

সরকারি অনুমতি ছাড়া পাকিস্তানে পৌঁছে যাওয়ায় কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রকের তরফেও ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে। ক্রীড়ামন্ত্রকের এক আধিকারিক বলেন, “কোনও আন্তর্জাতিক মঞ্চে দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে হলে সরকারি ছাড়পত্রের প্রয়োজন হয়। কিন্তু ক্রীড়ামন্ত্রক কিংবা বিদেশমন্ত্রকের তরফে কোনও অ্যাথলিটকে খেলতে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়নি।”

এদিকে, ভারতীয় অ্যামেচার কবাডি ফেডারেশনের (AKFI) গলাতেও একই সুর। তাদের তরফেও জানানো হয়েছে, কোনও দলকে পাকিস্তানে কবাডি খেলতে যাওয়ার ছাড়পত্র দেওয়া হয়নি। এমনকী এও বলা হয়েছে, যাঁরা বিনা অনুমতিতে সে দেশে পৌঁছেছে, তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। ফেডারেশনের প্রশাসক এসপি গর্গ বলেন, “কবাডি দল যে পাকিস্তানে যাচ্ছে, এমন কোনও খবরই আমাদের কাছে ছিল না। AKFI এ বিষয়ে কখনও কোনও অনুমতি দেয়নি। এমন ঘটনাকে ফেডারেশন প্রশ্রয় দেবে না। যাঁরা নিয়ম ভেঙেছে, তাঁদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ করা হবে।” এই বিতর্কের জল কোন দিকে গড়ায়, সেটাই দেখার।

[আরও পড়ুন: জিতেই চলেছে মোহনবাগান, পাঞ্জাবকে হারিয়ে লিগের শীর্ষেই রইল সবুজ-মেরুন শিবির]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং