৩১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শনিবার ১৫ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

৩১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  শনিবার ১৫ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  ইভিএম-এর স্বচ্ছতা এবং নির্বাচন কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়ে ভোট পর্বে বারবার সরব হয়েছেন বিরোধীরা। কিন্তু, এই প্রথম এ বিষয়ে মুখ খুলে কার্যত ভারতের নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে দরাজ সার্টিফিকেট দিল আমেরিকা। নির্বাচনী প্রক্রিয়ার ‘নিরপেক্ষতা’ এবং ‘স্বচ্ছতা’ সম্পর্কে তারা নিশ্চিত। এবং যে দলই জিতুক না কেন, তাদের সঙ্গে কাজ করতে যে আমেরিকার কোনও সমস্যা হবে না, তা জানিয়ে দিয়েছেন মার্কিন স্বরাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র মর্গ্যান ওর্টাগাস।

[আরও পড়ুন:  আমেরিকার সীমান্তে শরণার্থী শিশুর মৃত্যু, তদন্তের দাবি ট্রাম্প বিরোধীদের]

আমেরিকার কূটনীতিক মর্গ্যান জানান, “মার্কিন দৃষ্টিভঙ্গি থেকে এটা বলতে পারি, ভারতের নির্বাচনী প্রক্রিয়ার নিরপেক্ষতা এবং স্বচ্ছতা সম্পর্কে আমাদের কোনও সংশয়ই নেই। উলটে এ বিষয়ে আমরা নিশ্চিত। তাই নির্বাচনের ফল যা-ই হোক, যে দলই জিতুক, তাদের সঙ্গে কাজ করতে আমাদের কোনও সমস্যা নেই।” পাশাপাশি তিনি আরও জানান, ভারতের নির্বাচন কমিশনের স্বাধীনতা ও নিরপেক্ষতা নিয়ে সংশয় নেই বলেই অন্য অনেক দেশের মতো সেখানে নির্বাচনী পর্যবেক্ষক পাঠায় না আমেরিকা।

[আরও পড়ুন: সার্জিক্যাল স্ট্রাইকে গুঁড়িয়ে গিয়েছে জঙ্গিঘাঁটি, প্রতিবাদে মোদির পরাজয় কামনা পাকিস্তানের]

তিনি এও বলেন, “বিভিন্ন ইস্যুতে ভারত সরকারের সঙ্গে আমাদের দৃঢ় বন্ধন ও সহযোগিতার সম্পর্ক রয়েছে।” মার্কিন বিদেশ সচিব মাইক পম্পেও বারবার বলেছেন, “ভারত আমাদের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কৌশলগত সঙ্গী। সেই অবস্থানের কোনও পরিবর্তন হবে না।” দীর্ঘ এবং জটিল ভোটপ্রক্রিয়া অবাধ ও শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হওয়ায় ভারত ও তার জনগণের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন ওর্টাগাস। তাঁর কথায়, “একজন আজকেই আমার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন যে, ভারতের এই নির্বাচন প্রক্রিয়া বিশ্বের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া। বিশ্বের নানা প্রান্তে অনেক কিছুই ঘটছে। কিন্তু এটা এমনই একটা বিষয় যে, আমাদের কিছুক্ষণ স্তব্ধ হয়ে ভারতীয় জনতার এই অবিশ্বাস্য কৃতিত্বের প্রশংসা করতেই হয়।” বিশ্বের বৃহত্তম গণতান্ত্রিক দেশে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন প্রক্রিয়া শেষ করার জন্যে দেশের জনগণকে সাধুবাদ জানানোর পাশাপাশি, আগামী দিনে ভারত-মার্কিন সম্পর্কের আরও উন্নতি নিয়েও আশাবাদী মার্কিন স্বরাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র মর্গ্যান ওর্টাগাস। 

আমেরিকার পাশাপাশি  নরেন্দ্র মোদিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন চিনের প্রেসিডেন্ট শি জিংপিং এবং জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে। শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি৷ শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও। নতুন সরকারের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখার বিষয়ে আশাবাদী সকলেই৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং