BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনার প্রকোপে মৃত্যুপুরী আমেরিকা, ত্রাণ বিলির নেতৃত্বে RSS

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: April 25, 2020 7:55 pm|    Updated: April 25, 2020 7:55 pm

An Images

ছবিটি প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা ভাইরাসের প্রকোপ থেকে দেশবাসীকে বাঁচাতে গত ২৫ মার্চ থেকে লকডাউন চলছে ভারতে। গত ১৪ এপ্রিল তা উঠে যাওয়ার কথা থাকলেও পরিস্থিতি বিবেচনা করে আগামী ৩ মে পর্যন্ত এর সময়সীমা বৃদ্ধি করা হয়েছে। এর ফলে প্রচণ্ড সমস্যার মধ্যে পড়েছেন প্রান্তিক শ্রেণির মানুষ। তাঁদের অবস্থা দেখে সোশ্যাল মিডিয়াতে অনেকে দুঃখ প্রকাশ করলেও সাহায্যের জন্য খুব কম মানুষ ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে এগিয়ে আসতে দেখা গিয়েছে। যার মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ভূমিকা পালন করছেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের সদস্যরা। বিরোধীরা তাঁদের বিজেপির দোসর বলে কটাক্ষ করলেও কেরল ও দিল্লির মতো রাজ্যগুলিতে তাঁদের সেবামূলক কাজ দেখে প্রশংসা করছেন সবাই। এবার জানা গেল করোনা বিধ্বস্ত আমেরিকাতেও ত্রাণ বিলির কাজে নেতৃত্ব দিচ্ছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ (RSS) – এর একটি শাখা সংগঠন সেবা ইন্টারন্যাশনাল ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আমেরিকায় থাকা সংঘ পরিবারের শাখা সংগঠন সেবা ইন্টারন্যাশনালের নেতৃত্বে ২০০টির বেশি ইন্দো-আমেরিকান ও অন্য মার্কিন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলি ২৮ টি রাজ্যে ত্রাণ বিলির কাজ করছে। এর মধ্যে হিন্দু স্বয়ংসেবক সংঘের দেড় হাজারের বেশি সদস্যের পাশাপাশি অন্য সংগঠনগুলিরও আড়াই হাজারের বেশি সদস্য যুক্ত রয়েছেন। ইতিমধ্যে সেবা ইন্টারন্যাশনাল ত্রাণ কার্য চালানোর জন্য ৩.৫ মিলিয়নের বেশি মার্কিন ডলার সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছে। যেকোনও বিষয়ে সাধারণ মানুষকে সাহায্য করার জন্য আটটি হেল্পলাইনও খোলা হয়েছে। এছাড়া করোনার চিকিৎসার জন্য প্লাজমা জোগাড় করতে অনলাইনে প্লাজমাদাতাদের নাম নথিভুক্তকরণের প্রক্রিয়া চালু করেছিল তারা। এখনও পর্যন্ত তাতে ৬০ জন মানুষ নাম নথিভুক্ত করেছেন।

[আরও পড়ুন: স্প্যানিশ ফ্লুয়ের পরে করোনাকেও কুপোকাত করলেন শতায়ু বৃদ্ধা ]

এপ্রসঙ্গে হিন্দু স্বয়ংসেবক সংঘের যুগ্ম জনসংযোগ আধিকারিক বিকাশ দেশপাণ্ডে বলেন, ‘ভারতে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের কাজ দেখে আমরা অনুপ্রেরণা পেয়েছি। তাদের দেখানো পথেই সংঘের স্বয়ংসেবকরা আমেরিকায় করোনা পরিস্থিতিতে ত্রাণ কার্য চালাচ্ছেন। আসলে সংঘের ঐতিহ্য হল, যখনই কোনও সমস্যা হবে তখনই স্থানীয় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে তাঁদের সহযোগিতা করা। এখানেও তাই করা হচ্ছে।’

[আরও পড়ুন: কিছুতেই সারছে না কিমের অসুখ, চিকিৎসক দল পাঠাল ‘বন্ধু’ চিন ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement