BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৪ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

ভারতের হয়ে পাক সেনাকে নিশানা করছেন নওয়াজ, অভিযোগ ইমরান খানের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: October 2, 2020 7:24 pm|    Updated: October 2, 2020 7:37 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইমরান খান (Imran Khan) বনাম নওয়াজ শরিফ (Nawaz Sharif) লড়াইয়ে সরগরম পাকিস্তানের জাতীয় রাজনীতি। দুই নেতার অভিযোগ পালটা অভিযোগে ‘গণতান্ত্রিক’ সরকারে সর্বশক্তিমান সেনার হস্তক্ষেপের বিষয়টিও পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে। এবার ইমরানের অভিযোগ, ভারতের হয়ে পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর উপর হামলা চালাচ্ছেন নওয়াজ শরিফ।

[আরও পড়ুন: পাকিস্তানে ধর্ষকদের হুমকির জেরে কুয়োতে মরণঝাঁপ হিন্দু কিশোরীর]

কয়েকদিন আগেই লন্ডন থেকে ভারচুয়াল বৈঠকে ইমরান খানের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। ফের সক্রিয় রাজনীতিতে ফিরে বিরোধীদের ঐক্যবদ্ধ করে তিনি বলেছিলেন, “ইমরানের বিরুদ্ধে নয়, তাঁকে যাঁরা প্রধানমন্ত্রীর পদে বসিয়েছে, আমাদের লড়াই তাঁদের বিরুদ্ধে।” এই কথা অজানা নয় যে পাক সেনার স্নেহধন্য হয়েই মসনদে বসেছেন ইমরান। তাই পরোক্ষে রাওয়ালপিণ্ডিকেই যে নিশানা করেছিলেন নওয়াজ তা স্পষ্ট। শুধু তাই নয়, ইমরানের আমলে দেশের আর্থিক পরিস্থিতির বেহাল দশা এবং প্রশাসনিক কাজে সেনার নাক গলানো প্রসঙ্গও তুলেছিলেন শরিফ।

বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের বৈদ্যুতিন সংবাদমধ্য সামা টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ইমরান বলেন, “রাজনৈতিক উদ্দেশ্য পূরণ করতে ভয়ংকর খেলা খেলছেন নওয়াজ শরিফ। তিনি ভারতের ইশারায় পাক সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে মন্তব্য করছেন। আলতাফ হুসেনও একই খেলা খেলেছিলেন। আমি ১০০ শতাংশ নিশ্চিত নওয়াজকে মদত দিচ্ছে ভারত।”

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন দুর্নীতি মামলায় ২০১৭ সালে দোষী সাব্যস্ত হন শরিফ। পাক সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ৭ বছরের কারাবাসের শাস্তি হয়। মাস কয়েক আগে জেলে থাকাকালীন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ায় জামিন নিয়ে ব্রিটেনে যান চিকিৎসার জন্য। জামিনের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও না ফেরায় পাক প্রশাসন তাঁকে ‘পলাতক’ ঘোষণা করে। পিটিআই প্রশাসনের বিরুদ্ধে শরিফ বরাবর অভিযোগ করে এসেছেন যে সেনার অঙ্গুলিহেলনে তাঁর মতো বিরোধীদের কোণঠাসা করার চেষ্টা করেছেন ইমরান খান। সেই অভিযোগেই ফের সরব হলেন পাকিস্তানের ‘পলাতক’ প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: H-1B ভিসা নিষেধাজ্ঞায় স্থগিতাদেশ মার্কিন আদালতের, স্বস্তিতে হাজার হাজার ভারতীয়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement