BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ! WHO প্রধানের পদত্যাগ দাবি ১০ লক্ষ মানুষের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 28, 2020 12:52 pm|    Updated: April 28, 2020 12:52 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে মহামারি। করোনার প্রভাবে প্রাণ গিয়েছে হাজার হাজার মানুষের। সংক্রমিত লক্ষ লক্ষ। কিন্তু এহেন মহামারি ঠেকাতে দৈনিক বিবৃতি দেওয়া ছাড়া WHO আর কোনও কার্যকারী পদক্ষেপই করেনি। WHO-এর ডিরেক্টর-জেনারেল টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস (Tedros Adhanom Ghebreyesus) করোনা রুখতে পুরোপুরি ব্যর্থ এবং চিনের প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট। এই অভিযোগ তুলে তাঁর পদত্যাগের দাবিতে সরব হলেন ১০ লক্ষ মানুষ।

WHO-India

করোনা রুখতে ব্যর্থতার অভিযোগ তুলে WHO-এর ডিরেক্টর-জেনারেলের বিরুদ্ধে একটি অনলাইন পিটিশন তৈরি করা হয়। যাতে লেখা ছিল, “গত ২৩ জানুয়ারি ২০২০ সালে টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস করোনা ভাইরাসকে মহামারি ঘোষণা করতে অস্বীকার করেন। আমরা সকলেই জানি করোনা ভাইরাসের কোনও চিকিৎসা নেই। সেদিনের পর মাত্র ৫ দিনে করোনার সংক্রমণ এবং মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় ১০ গুণ বেড়ে যায়। আর এর দায় অনেকাংশে টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুসের। তিনি এই ভাইরাসের ক্ষমতাকে গুরুত্ব দেননি। আমাদের মনে হয় টেড্রোস আধানম WHO-এর ডিরেক্টর-জেনারেলের পদে থাকার উপযুক্ত লোক নন। তাই, এখনই তাঁর পদত্যাগ করা উচিত।” অনলাইনে এই পিটিশনটিতে এখনও পর্যন্ত ১০ লক্ষেরও বেশি মানুষ সই করেছেন।

[আরও পড়ুন: ‘বিপদ কাটতে অনেক দেরি’, করোনা নিয়ে নতুন আশঙ্কার কথা শোনাল WHO]

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্তার বিরুদ্ধে চিনের প্রতি পক্ষপাতিত্বেরও অভিযোগ এনেছেন পিটিশনকারীরা। তাঁরা বলছেন,”WHO-এর তো রাজনৈতিকভাবে নিরপেক্ষ হওয়া উচিত। কিন্ত টেড্রোস আধানম ঘেব্রিয়েসুস চিন যে মৃতের সংখ্যা বলছে, তা চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করছেন। কোনও তদন্তেরও প্রয়োজন বোধ করছেন না।” উল্লেখ্য, WHO কর্তার বিরুদ্ধে চিনের প্রতি পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ নতুন কিছু নয়। এর আগে খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প চিনের তাবেদারি করার অভিযোগে এনে বলেন, করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের যে সংখ্যা দেখাচ্ছে চিন, তাতে গলদ আছে। আসল তথ্য চেপে গোটা বিশ্বকে ধোঁকা দিচ্ছে তারা। চিনের সঙ্গে মিলে গিয়েছে WHO-ও। চিনের অনৈতিক কাজে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মদত আছে। এই অভিযোগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে দেওয়া সাহায্য বন্ধেরও সিদ্ধান্ত নেন ট্রাম্প। এবার খোদ WHO কর্তারই পদত্যাগের দাবি উঠল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement