১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

আয়ুর্বেদের প্রভাবে করোনা থেকে সুস্থ হননি চার্লস, দাবি বাকিংহামের

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: April 4, 2020 9:12 pm|    Updated: April 4, 2020 9:12 pm

Prince Charles denies to Indian Ministers Ayurveda cure

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার করাল গ্রাস থেকে বেরিয়ে এসেছেন প্রিন্স চার্লস। তবে তিনি করোনার সংক্রমণ থেকে সম্পূর্ণভাবে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস (NHS)-এর চিকিৎসা ও তত্ত্বাবধানে। এমটাই জানানো হয় বাকিংহাম প্যালেসের তরফ থেকে। তাঁর সুস্থতার সঙ্গে আয়ুর্বেদের কোনও সম্পর্ক নেই বলেই জানান তিনি।

ব্রিটেনের ক্লেয়ারেন্স হাউজ প্রিন্স চার্লসের সুস্থ হয়ে ওঠা প্রসঙ্গে ভারতের প্রকাশিত একটি তথ্যকে সম্পূর্ণ মিথ্যে বলে দাবি করে জানায়, প্রিন্স চার্লসের সুস্থতার সঙ্গে ভারতীয় আয়ুর্বেদ ও হোমিওপ্যাথির কোনও হাত নেই। যদিও চলতি সপ্তাহের পূর্বে প্রতিমন্ত্রী শ্রীপদ নায়েক জানান, আয়ুর্বেদ ও হোমিওপ্যাথির জোরেই সুস্থ হয়েছেন প্রিন্স চার্লস। আর তার সম্পূর্ণ কৃতিত্ব বেঙ্গালুরুর বিশেষজ্ঞ ইসাক মাথাইয়ের। ডঃ মাথাই জানিয়েছিলেন, করোনার জীবাণু দূর করতে আয়ুর্বেদ ও হোমিওপ্যাথিকেই কাজে লাগানো হয়েছিল। তাঁর চিকিৎসা সফল হয়েছে। প্রিন্স এখন সম্পূর্ণ করোনামুক্ত। দক্ষিণ ভারতের বেঙ্গালুরুতে ‘সৌক্য’ নামের একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র চালান ডা. মাথাই। এই তথ্যকেই ভুল বলে দাবি করেন এলিজাবেথপুত্র। তিনি জানান, এনএইচএস ছাড়া কারওর পরামর্শ শোনেননি।

সত্তরোর্ধ্ব প্রিন্স চার্লস প্রায় এক বছর ধরে গলার চিকিৎসা করছেন ভারতীয় আয়ুর্বেদ পদ্ধতিতে। পাশাপাশি ২০১৮-র এপ্রিলে মোদির ব্রিটেন সফরের সময় তাঁর সফরসঙ্গী হিসেবেও ছিলেন তিনি। তবে ব্রিটিশ রাজপরিবারের দাবি, ‘সৌক্য’-র সঙ্গে একটি রাজকীয় পরিবারের নাম জড়িয়ে থাকায় আয়ুর্বেদের গুণাগুণেই প্রিন্স চার্লস সুস্থ হয়ে উঠছেন বলেই হয়তো মন্তব্য করেন ডঃ মাথাই। তবে রাজ পরিবারের সুস্থতার সঙ্গে যে আয়ুর্বেদের কোনও যোগসূত্র নেই তা স্পষ্ট করে দেন প্রতিমন্ত্রী নায়েক।

[আরও পড়ুন: করোনাকে কুপোকাত করার ভুয়ো বিজ্ঞাপন! কেন্দ্রের নজরে দুই সংস্থা]

করোনা সংক্রমিতরা যাতে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন তার জন্য ভগবানের কাছে তাদের সকলের হয়ে প্রার্থনা করবেন বলে জানান প্রিন্স চার্লস। সঙ্গে এই মারণ ভাইরাসের কবল থেকে গোটা পৃথিবীর মুক্তি ও তিনি কামনা করবেন বলে দাবি করেন। অন্যদিকে, লন্ডনের সায়েন্স মিউজিয়ামের তরফ থেকে একটি আয়ুর্বেদ বিভাগ খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যেখানে আয়ুর্বেদ ও যোগ শাস্ত্র সংক্রান্ত নানা তথ্য জানান হবে।

[আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতি নিয়ে ৮ এপ্রিল সর্বদল বৈঠকের ডাক প্রধানমন্ত্রীর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে