BREAKING NEWS

২৩ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শনিবার ৬ জুন ২০২০ 

Advertisement

সাম্প্রদায়িকতায় উসকানির আশঙ্কা, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারে আপাতত নিষেধাজ্ঞা শ্রীলঙ্কায়

Published by: Bishakha Pal |    Posted: May 13, 2019 2:42 pm|    Updated: May 13, 2019 2:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শ্রীলঙ্কায় সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ হল ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপ-সহ অন্যান্য সোশ্যাল সাইট। ইস্টারের সময় গির্জায় আইএস হামলার পর থেকে পালটা জবাবে দেশজুড়ে মসজিদ ও মুসলিম ব্যবসায়ীদের উপর হামলার জেরে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে শ্রীলঙ্কা সরকার।

সংবাদসংস্থা সূত্রে খবর, রবিবার ফেসবুকের একটি পোস্টের জেরে একটি মুসলিম ব্যবসায়ীর দোকানে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। প্রায় ডজন খানেক মানুষ মসজিদ লক্ষ্য করেও পাথর ছুঁড়তে থাকে। ঘটনার জেরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। ঘটনাস্থলে যায় পুলিশ। হামলাকারীদের থেকেই জানা যায় একটি ফেসবুক পোস্টের কারণেই ছড়ায় উত্তেজনা। শুরু হয় পোস্টের লেখকের অনুসন্ধান। তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ওই ব্যক্তির নাম আবদুল হামিদ মহম্মদ হাসমর। বয়স ৩৮ বছর।

রবিবার এই ঘটনার পর সোমবার ফের কুরুনেগালা জেলায় একদল দুষ্কৃতী মুসলিম ব্যবসায়ীর দোকানের উপর হামলা চালায় বলে জানিয়েছে পুলিশ। শ্রীলঙ্কা সেনার মুখপাত্র সুমিত আতাপাত্তু জানিয়েছেন, এলাকায় এখন কড়া নজরদারি চলছে। রাতেও মোতায়েন থাকছে কার্ফু। হামলার ফলে এলাকায় অনেক মুসলিম পরিবারের বাড়িঘর ভেঙে গিয়েছে বলে দাবি করেছে মুসলিম কাউন্সিল অফ শ্রীলঙ্কা। তবে ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে এখনও বিস্তারিত কোনও তথ্য জানা যায়নি। ঘটনায় কতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তারও সঠিক হিসেব নেই৷

[ আরও পড়ুন: যুবকের কানের ভিতর জাল বুনছে মাকড়সা! ভিডিও দেখে তাজ্জব নেটদুনিয়া ]

ইস্টার সানডে শ্রীলঙ্কার মোট আটটি জায়গায় আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ হয়। ঘটনায় প্রায় আড়াইশো জনের মৃত্যু হয়। ঘটনার দায় স্বীকার করে জঙ্গিগোষ্ঠী আইএস। তারপর থেকে টার্গেট হয়ে গিয়েছে শ্রীলঙ্কায় বসবাসকারী মুসলিম সম্প্রদায়। হামলার পর প্রায় তিন সপ্তাহ অতিক্রান্ত হয়ে গিয়েছে। অভিযোগ, মুসলিম বিদ্বেষ মুছে যাওয়া দূরের কথা, তা উত্তরোত্তর বাড়ছে। মুসলিম সংগঠনগুলির দাবি, তারা একের পর এক হামলার অভিযোগ পাচ্ছে।

আর শ্রীলঙ্কায় বসবাসকারী অন্য সম্প্রদায়ের মানুষ জানাচ্ছেন, তাঁদের ভয় অন্য জায়গায়। ইস্টারের হামলার পর শ্রীলঙ্কা সরকার এখনও অভিযু্ক্তদের সকলের নাগাল পায়নি৷ অধরা যারা, তারাই অতর্কিতে হামলা চালাচ্ছে৷ এসবের জেরে সোমবার থেকে শ্রীলঙ্কার সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়াগুলি অস্থায়ীভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। শ্রীলঙ্কা সরকারের তরফ থেকে এই খবর জানানো হয়েছে। ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ ও টুইটার ছাড়াও ভাইবার, আইএমও, স্ন্যাপচ্যাট, ইনস্টাগ্রাম ও ইউটিউবও বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত এই প্রত্যেকটি অ্যাপ বন্ধ রাখা হবে বলে নির্দেশ দিয়েছে শ্রীলঙ্কা প্রশাসন।

[ আরও পড়ুন: ভারতের প্রচেষ্টায় জল, মেহুল চোকসিকে গ্রেপ্তার করবে না অ্যান্টিগা ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement