‘শুধু মাথা কামালেই হবে না, ইনাম পেতে পূরণ করতে হবে বাকি দুই শর্ত’

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুধু মাথা কামালেই হবে না, তার সঙ্গে গলায় একজোড়া পুরনো ছেঁড়া জুতোর মালা পরে গোটা দেশ ঘুরতে হবে। তাহলেই মিলবে ফতোয়ার ১০ লক্ষ টাকা ইনাম। বুধবার যাঁর ফতোয়ার যোগ্য জবাব দিতে সাংবাদিকদের ডেকে মাথা কামালেন সংগীতশিল্পী সোনু নিগম, সেই পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু ইউনাইটেড কাউন্সিলের সহ-সভাপতি তথা মৌলবী সৈয়দ শাহ আতেফ আলি আল কাদরি এবার নয়া দাবি রাখলেন। এদিন দিনভর কাদরির ফতোয়া এবং সোনুর পাল্টা জবাব নিয়েই সরগরম ছিল বিভিন্ন মহল। কাদরি ফতোয়া জারি করেছিলেন, সোনুর মাথা কামিয়ে গলায় একজোড়া ফাটা জুতোর মালা পরিয়ে গোটা দেশে ঘোরাতে পারলে ১০ লক্ষ টাকা ইনাম দেবেন। সেই ফতোয়ার পাল্টা এদিন সোনু নিজের মাথা কামিয়ে নেন। এরপর ইনামের টাকা দাবি করেছেন সোনু। সংবাদ সংস্থা এএনআইকে কাদরি জানিয়েছেন, তিনটের মধ্যে একটি শর্ত পূরণ হয়েছে। বাকি শর্ত পূরণ করলে তবেই মিলবে ইনাম।

প্রসঙ্গত, আজান নিয়ে টুইট বিতর্কে এদিন সাংবাদিক বৈঠক করে সোনু জানান, তিনি কখনওই মহম্মদকে অপমান করতে চাননি। তাঁর টুইটে মন্দির ও গুরুদ্বারের কথাও ছিল। কিন্তু সে কথা সামনে না এসে শুধু আজানের কথাই সামনে আনা হয়েছে। আগে টুইট করে জানিয়েছিলেন, এবার নিজের মুখে জানালেন, তিনি ইসলাম বিরোধী নন। তিনি শুধু জানাতে চেয়েছিলেন, লাউডস্পিকারের ব্যবহার কোনও ধর্মীয় প্রয়োজনীয়তা নয়। আমেরিকা বা অস্ট্রেলিয়ার মতো দেশে তা করা হয় না। তাঁর দাবি, তিনি সাধারণ একটি বিষয়ে কথা বলেছিলেন। তা নিয়ে অনর্থক জটিলতা তৈরি করা হয়েছে। প্রত্যেকেরই মতপ্রকাশের স্বাধীনতা আছে। সেরকমই তিনি একটি বিষয়ে মতামত জানিয়েছিলেন। তাঁর এই মন্তব্যের জেরেই তাঁর বিরুদ্ধে ফতোয়া জারি করেছিল পশ্চিমবঙ্গের ওই মুসলিম সংগঠন। সোনুর মাথা কামিয়ে জুতোর মালা পরিয়ে দেশ ঘোরালে ১০ লক্ষ টাকা ইনামের ফতোয়া জারি করা হয়েছে। এদিন সোনুর ঘনিষ্ঠ আলিম ভাইকেও সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। জানান, তিনি হিন্দু এবং একজন মুসলিমই তাঁর মাথা কামাবে। কিন্তু সেটা ভালবাসার সঙ্গেই করা যায়। তার জন্য ফতোয়ার দরকার নেই। সোনুর মাথা কামানোর পর নেটদুনিয়ায় উঠছে একটাই প্রশ্ন, আদৌ ফতোয়ার ইনাম পাবেন তো সোনু? কিন্তু মৌলবী কাদরি এমন জল্পনা অঙ্কুরেই বিনাশ করে দিয়ে তিনটি শর্ত পূরণ করার দাবি করেছেন। এই ফতোয়া সংস্কৃতির জেরে সোনু-কাদরি লড়াইয়ের জল কতদূর গড়ায় এখন সেটাই দেখার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *