পারলে সতীদাহও ফিরিয়ে আনুক হিন্দুরা, ব্যঙ্গ আজম খানের

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিনি মুখ খুললেই বিতর্কের নয়া অধ্যায় রচিত হয়৷ সেই অধ্যায়ে নয়া সংযোজন সাম্প্রতিক তিন তালাক মন্তব্য৷ আর এই প্রসঙ্গে তিনি বিঁধলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে৷

[‘আজানে প্রশ্ন, সোনু কি রাজ্যসভায় বিজেপি সাংসদ হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন?’]

বুধবারই মুখ্যমন্ত্রী পদে এক মাস মেয়াদ সম্পূর্ণ হল আদিত্যনাথের৷ ইতিমধ্যেই বেশ কিছু সিদ্ধান্তের জন্য সংবাদের শিরোনামে এসে গিয়েছেন গো-বলয়ের নয়া মুখ্যমন্ত্রী৷  সম্প্রতি তিনি তিন তালাক নিয়েও নিজের মতামত প্রকাশ করেছিলেন৷ এক বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে এসে আদিত্যনাথ বলেছিলেন, “যাঁরা তিন তালাকের মতো প্রথার বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন না, তাঁরাও সমান দোষী৷”এই প্রসঙ্গে তিনি মহাভারতে উল্লিখিত দ্রৌপদীর বস্ত্রহরণের বিষয়টিও তুলে আনেন৷ তাঁর যুক্তি, সেই বিষয়েও যাঁরা কোনও শব্দ উচ্চারণ করেননি তাঁরাও সমান দোষী৷ এই প্রেক্ষিতেই এদিন আদিত্যনাথকে কটাক্ষ করেছেন আজম খান৷ তিনি বলেন, “কে ওঁকে তিন তালাক নিয়ে আইন লাগু করতে বাধা দিয়েছেন? তবে তার আগে আমায় বলুন, কোন মুসলিম সতীদাহ প্রথার বিরুদ্ধে সওয়াল তুলেছিলেন?”  ঘুরিয়ে তিন তালাক থাকা বা না-থাকার সিদ্ধান্ত মুসলিম সম্প্রদায়ের হাতে ছেড়ে দেওয়ার কথাই বলেছেন সপা নেতা৷ সতীদাহ প্রথা রদের ব্যাপারে কোনও মুসলিম হস্তক্ষেপ করেননি এ দাবি করে তিনি আসলে বলতে চাইছেন, কেন শরিয়তের উপরে গিয়ে তিন তালাক বন্ধ করার এত তোড়জোর নেওয়া হচ্ছে? সরাসরি না বললেও তাঁর ইঙ্গিত ছিল স্পষ্ট৷ আর তাতেই নানামহলের সমালোচনার শিকার হচ্ছেন ওই নেতা৷

[চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ১০০ গোলের একমাত্র মালিক হয়ে নজির রোনাল্ডোর]

আজম খানের বাক্যবাণের হাত থেকে অবশ্য রেহাই পাননি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও৷ কিছুদিন আগেই যখন প্রধানমন্ত্রী নিজে তিন তালাক নিয়ে নিজের দুশ্চিন্তা ব্যক্ত করেছিলেন৷ তিনি বলেছিলেন আমাদের বোনেদের সুবিচার পাওয়ার অধিকার রয়েছে৷ আমাদের এই সমস্যা জেলাস্তরে সমাধান করা উচিত৷ মিলেমিশে এক নতুন ভারতের যোগসূত্র বের করা প্রয়োজন৷ এভাবে ধীর গতিতে চললে হবে না, গতিশীল হয়ে এগিয়ে যেতে হবে৷ সেই প্রসঙ্গেও মুখ খুলেছিলেন আজম খান৷ তিনি বলেছিলেন, তিন তালাক সম্পর্কে অনেকেরই সম্যক ধারণা নেই৷ শরিয়তের নিয়ম মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষরাই সবচেয়ে ভাল জানে৷ তাই এই নিয়ে সিদ্ধান্তের অধিকার তাঁদের হাতেই থাকা উচিত বাইরের কারও নয়৷

[ভরসা দিচ্ছে ঘূর্ণাবর্ত, আজ শহরে বৃষ্টির সম্ভাবনা]

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *