BREAKING NEWS

১৫ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  শুক্রবার ২৯ মে ২০২০ 

Advertisement

প্রতিবাদের ভাষা শেখালেন কিশোরী, প্রকাশ্যে ইভটিজারকে জুতোপেটা স্কুল ছাত্রীর

Published by: Tanujit Das |    Posted: June 25, 2019 9:10 pm|    Updated: June 25, 2019 9:31 pm

An Images

টিটুন মল্লিক, বাঁকুড়া: ‘পুলিশ তুমি যতই মারো, মাইনে তোমার একশো বারো’। ছয়ের দশকে কংগ্রেস আমলে এ রাজ্যের পুলিশ-প্রশাসনের বিরুদ্ধে এই স্লোগান শোনা যেত৷ যখন পুলিশের উপর বিশ্বাস হারিয়ে এই স্লোগান দিতেন তৎকালীন বাম নেতা-কর্মীরা৷ তবে আজও যে এই স্লোগানের প্রাসঙ্গিকতা রয়েছে, তা বোঝাল বাঁকুড়ার এক নবম শ্রেণীর ছাত্রী৷ পুলিশের উপর আস্থা হারিয়ে সাহসিকতার নজির গড়ল সে। ইভটিজিং করায় এক স্ট্রিট রোমিওকে প্রকাশ্যে জুতোপেটা করল ওই কিশোরী। গত শুক্রবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার গঙ্গাজলঘাঁটি থানার বেনাগাড়ির গ্রামে৷ মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে সেই মারের ভিডিও৷ যার ফলে জেলাজুড়ে শোরগোল পড়ে গিয়েছে৷

[ আরও পড়ুন: বিধায়ক দলে যোগ দিতেই বনগাঁয় বিক্ষোভ মিছিল বিজেপি কর্মীদের]

জানা গিয়েছে, নবম শ্রেনীর ওই ছাত্রীর বাড়ি বাঁকুড়ার মেজিয়া থানার মুরগাবনী গ্রামে। আর অভিযুক্ত কিশোরের বাড়ি বেনাগাড়ি গ্রামে। অভিযোগ, শুক্রবার স্কুলে যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীকে অশ্লীল ইঙ্গিত করে অভিযুক্ত৷ এরপরই রাস্তার মধ্যেই অভিযুক্তকে জুতোপেটা করে কিশোরী৷ কলার ধরে রাস্তায় ফেলে অভিযুক্তকে পেটায় সে৷ যদিও এই ঘটনার থানায় কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। তবে প্রতিবাদী ছাত্রীর এহেন সাহসিকতা দেখে আনন্দিত তার বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশীরা। ওই ছাত্রীর পরিবারের অভিযোগ, স্কুল ও গৃহশিক্ষকের কাছে যাওয়ার পথে প্রতিদিন মেয়েটিকে নানান কটূক্তি করত অভিযুক্ত৷ শুক্রবার যার বাঁধ ভেঙে যায়৷ ফলে ওইদিন রাস্তাতেই জুতো খুলে অভিযুক্তকে পেটায় কিশোরী। ওই স্কুলছাত্রীর এহেন সাহসিকতায় স্বভাবতই মুগ্ধ মেজিয়ার মুরগাবনী গ্রাম।

[ আরও পড়ুন: কলকাতায় বসে হুকুম চালাত অরূপ বিশ্বাস’! বিজেপিতে গিয়েই তোপ উইলসনের ]

মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় কিশোরির মারের ক্যামেরাবন্দি ভিডিও ফুটেজ৷ প্রতিবাদী ওই ছাত্রী জানায়, ‘‘প্রতিদিন বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে নারীদের ওপর নানান অত্যাচারের ঘটনা দেখি৷ পুলিশকে জানানোর পরেও দেখি, কোনও কাজ হয়নি। সেই কারণেই ছেলেটিকে উচিত শিক্ষা দেওয়ার জন্য নিজের মধ্যে শক্তিসঞ্চয় করেছিলাম। তাই নিজের পায়ের জুতো খুলে তাকে উচিত শিক্ষা দিয়েছি।’’ স্কুল ছাত্রীর এহেন সাহসিকতা দেখে স্বভাবতই খুশি লটিয়াবনী অঞ্চল হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক উজ্জ্বল রায়৷ তিনি বলেন, ‘‘পিছিয়ে পড়া জেলার এই মেয়েই এবার গোটা রাজ্যের চোখ খুলে দেবে। শিখিয়ে দেবে প্রতিবাদের ভাষা। ও সবার অলক্ষ্যে, অজান্তে এবং নীরবে এই পুরুষতান্ত্রিক সমাজের মুখে ঝামা ঘষে দিয়েছে।’’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement