BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মাংস গলে বেরিয়ে গিয়েছে হাড়! বৃদ্ধার পচাগলা দেহ উদ্ধারে চাঞ্চল্য হিন্দমোটরে

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: September 8, 2020 5:39 pm|    Updated: September 8, 2020 5:39 pm

An Images

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: বাড়ি থেকে বৃদ্ধার পচাগলা দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল হুগলির (Hooghly) হিন্দমোটরের ব্যাংক পার্ক এলাকায়। স্থানীয়দের অনুমান, এক মাস আগেই ওই বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে উত্তরপাড়া থানার পুলিশ দরজা ভেঙে উদ্ধার করে দেহ। ইতিমধ্যেই ময়নাতদন্তের জন্য দেহটি শ্রীরামপুর ওয়ালশ
হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গিয়েছে, মৃত বৃদ্ধার নাম শীলা গুহঠাকুরতা। তাঁর দুই ছেলে ও এক মেয়ে। প্রত্যেকেই বিবাহিত। কর্মসূত্রে দুই ছেলে থাকেন বারাসাতে। শীলাদেবী একাই থাকতেন হিন্দমোটরের ব্যাংক পার্কের বাড়িতে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, গত প্রায় এক মাস ধরে বৃদ্ধাকে বাড়ির বাইরে দেখেননি। প্রথমদিকে বিষয়টায় আমল দেননি প্রতিবেশীরা। তবে মঙ্গলবার হঠাৎই তাঁদের মনে সন্দেহ জাগে। এরপরই বৃদ্ধাকে ডাকাডাকি করতে শুরু করেন তাঁরা। সাড়া না পেয়ে বাইরে থেকে বাড়ির জানালার কাঁচ ভাঙতেই প্রতিবেশীরা দেখেন বিছানায় মশারির ভিতর বৃদ্ধার পচাগলা দেহ। মাংস গলে বেরিয়ে পড়েছে হাড়। মাথার উপর ঘুরছে পাখা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দেহটি উদ্ধার করে।

[আরও পড়ুন: দুই নাবালিকাকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ! একজন অপমানে আত্মঘাতী, চাঞ্চল্য জলপাইগুড়িতে]

এবিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা নিতাই দাশগুপ্ত বলেন, হিন্দমোটর মালির বাগানের ওই বৃদ্ধা তাঁর ভাইয়ের কাছে বেশ কিছুদিন কাটানোর পর গত ৬ আগস্ট নিজের বাড়িতে ফেরেন। তারপর বৃদ্ধা জ্বরে আক্রান্ত হয়েছিলেন বলে জানা যায়। স্থানীয় ওষুধের দোকান থেকে ওষুধ কিনেও খেয়েছিলেন। কিন্তু তারপর থেকে গত একমাস ধরে ওই বৃদ্ধাকে এলাকার মানুষ আর দেখতে পাননি। স্থানীয়রা জানান, যেহেতু বৃদ্ধার বাড়ি পাড়ার একদম শেষে, আর বাড়ির পাশেই একটা ঝিল রয়েছে তাই পাড়ার লোকেরাও ওই দিকে বিশেষ একটা যেত না। তাছাড়া বৃদ্ধার ঘরের সমস্ত দরজা জানালা বন্ধ থাকায় মৃত্যুর পরে বাইরে থেকে কোনও দুর্গন্ধও পাওয়া যায়নি। পাড়ার লোকেদেরই হঠাৎ সন্দেহ হওয়ার পরই জানালা ভেঙে দেখা যায় বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। জানা গিয়েছে, খবর পেয়ে দুপুরেই ঘটনাস্থলে যায় মৃতার দুই ছেলে। কিন্তু এই ঘটনার প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, গত একমাসে কি বৃদ্ধাকে একবারও ফোন করেননি তাঁর সন্তানরা?

[আরও পড়ুন: কঙ্গনার জন্য কেন Y+ ক্যাটাগরির নিরাপত্তার ব্যবস্থা? কেন্দ্রকে প্রশ্ন তৃণমূল সাংসদ মহুয়ার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement