BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

আর্দ্রতা চরমে, দফায় দফায় বৃষ্টি হলেও ঘর্মাক্ত পরিবেশ থেকে মিলবে না স্বস্তি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 6, 2020 11:09 am|    Updated: July 6, 2020 11:10 am

An Images

নব্যেন্দু হাজরা: বৃষ্টি হবে দিনভর, দফায় দফায়। কখনও ছিটেফোঁটা, কখনও ঝমঝমিয়ে। কিন্তু স্বস্তি মিলবে না তাতেও। আর্দ্রতা (Humidity) বেশি থাকায় রাজ্যজুড়ে অস্বস্তিকর গরমের দাপট থাকবেই। এমনই পূর্বাভাস আলিপুর হাওয়া অফিসের। ফলে বর্ষার মরশুমেও সে অর্থে আরাম নেই রাজ্যবাসীর।

উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ ক্রমশ উত্তর ওড়িশার দিকে সরছে। সক্রিয় মৌসুমী অক্ষরেখা ওড়িশার নিম্নচাপ এলাকা দিয়ে বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে। আর এর প্রভাবে প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকছে এ রাজ্যে। যার ফলে দফায় দফায় বৃষ্টিতে ভিজছে দক্ষিণবঙ্গ। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস, আজ দিনভর কলকাতার আকাশ মেঘলা থাকবে। কলকাতা-সহ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে দিনভর কয়েক দফায় বৃষ্টি হবে। বিক্ষিপ্তভাবে ভারী বৃষ্টি হতে পারে পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ ও পশ্চিম বর্ধমানে। আগামী কয়েকদিন দক্ষিণবঙ্গে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান আবহাওয়াবিদরা। তবে বাতাসে প্রচুর জলীয় বাষ্প থাকায় আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থেকে রেহাই নেই বঙ্গবাসীর। 

[আরও পড়ুন: উত্থানের নন্দীগ্রামেই ত্রাণে দুর্নীতি! অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতে ২০০ তৃণমূল নেতাকে শোকজ]

রবিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ছিল ৮১ থেকে ৯৭ শতাংশ, যা অনেকটাই বেশি। গত ২৪ ঘন্টায় শহরে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ৩১.৮ মিলিমিটার। অপরদিকে, উত্তরবঙ্গের কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে বিক্ষিপ্ত ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। বজ্রবিদ্যুৎ-সহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে। বুধবার থেকে বৃষ্টি বাড়বে পার্বত্য দার্জিলিং, কালিম্পংয়ে। বৃহস্পতিবার থেকে ফের অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ারে।

[আরও পড়ুন: শক্তিগড়ের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টেকা গেল না, বন্ধের পথে মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প ‘মিষ্টি হাব’]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement