৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯ 

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রাজা দাস, বালুরঘাট: বুথে গিয়ে ভোট পরিচালনার দায়িত্ব থেকে রেহাই পেয়েছিলেন ঠিকই। তবে রিজার্ভে ছিলেন। দক্ষিণ দিনাজপুরের বুনিয়াদপুরে বাড়ি থেকে এক ভোটকর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করল পুলিশ। প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, ভোটের কাজে নিরাপত্তাহীনতার আতঙ্কে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের কাছে রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন।

[ আরও পড়ুন: প্রচারে বেরিয়ে দুষ্কৃতী হামলার মুখে বোলপুরের বিজেপি প্রার্থী, কাঠগড়ায় তৃণমূল]

মৃতের নাম বাবুলাল মুর্মু। বাড়ি, বুনিয়াদপুরের শ্যামাপল্লিতে। কুশমণ্ডির সরলা স্কুলে শিক্ষকতা করতেন বাবুলাল। মঙ্গলবার তৃতীয় দফায় ভোট ছিল দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রে। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, লোকসভা ভোটে কোনও বুথে ডিউটি ছিল না বাবুলালের। তাঁকে রিজার্ভে রাখা হয়েছিল অর্থাৎ ভোট চলাকালীন বুথে যদি কোনও সমস্যা হয়, তাহলে সংশ্লিষ্ট বুথে গিয়ে ভোট পরিচালনার দায়িত্ব সামলাতে হত সরকারি স্কুলের ওই শিক্ষককে। মঙ্গলবার ভোটগ্রহণকে ঘিরে বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষিপ্ত অশান্তি হয়। এমনকী, সোমবার রাতেও তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল তপন ব্লকের বজ্রাপুকুর গ্রাম। সোমবার রাতে বালুরঘাট শহরে যেখান থেকে ইভিএম-সহ অন্যন্য সংগ্রহ করেছেন জেলার ভোটকর্মীরা, সেখানে গিয়েছিলেন বাবুলালও। রাতে বাড়িতে ফিরেও এসেছিলেন। মঙ্গলবার ঘরে বাবুলাল মুর্মুর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান পরিবারের লোকেরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ, মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়।    

মৃতের পরিবার লোকেরা জানিয়েছেন, ভোটে জেলার বিভিন্ন জায়গায় অশান্তির খবরে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছিলেন বাবুলাল মুর্মু। আতঙ্কে গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। বস্তুত ভোট শুরুর আগে বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন দাবিতে উত্তর দিনাজপুর, কোচবিহারে বিক্ষোভ দেখান ভোটকর্মীরা। উত্তর দিনাজপুরে একদিনের জন্য বন্ধ ছিল ভোটকর্মীদের প্রশিক্ষণও।

[ আরও পড়ুন:অসুস্থতার জন্যই যোগীর সভায় অনুপস্থিত, সাংবাদিক বৈঠকে সাফাই শান্তনুর

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং