BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফোন করে ‘দেখে নেওয়ার’ হুমকি, বাবুলের বিরুদ্ধে থানার দ্বারস্থ জিতেন্দ্র তিওয়ারি

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: June 1, 2019 8:04 pm|    Updated: June 1, 2019 8:04 pm

An Images

চন্দ্রশেখর চট্টোপাধ্যায়, আসানসোল: ফের মেয়র বনাম সাংসদের লড়াই শুরু হল আসানসোলে। সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র বিরুদ্ধে থানার দ্বারস্থ হলেন আসানসোলের মেয়র তথা তৃণমূলের জেলা সভাপতি জিতেন্দ্র তিওয়ারি। মেয়রকে ফোনে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সাংসদের বিরুদ্ধে। সাংসদ জানিয়েছেন, তিনিই ফোন করেছিলেন তবে হুমকি দিতে নয়, আসানসোলের উন্নতি নিয়ে আলোচনা করতে। 

[আরও পড়ুন: পুকুর খোঁড়ার সময় বোমা বিস্ফোরণ, আহত ১ শ্রমিক]

মেয়রের অভিযোগ, শনিবার বেলা ১টা ০৯ নাগাদ তাঁর মোবাইলে একটি ফোন যায়। ফোনে এক ব্যক্তি নিজেকে বাবুল সুপ্রিয় বলে দাবি করেন। এরপরই তাঁকে অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজের পাশাপাশি তাঁকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকেও গোটা বিষয়টি জানান মেয়র। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই থানায় অভিযোগও দায়ের করেন তিনি। জানা গিয়েছে, প্রায় ৩ মিনিট ৩৭ সেকেন্ডে ফোনে ওই ব্যক্তির সঙ্গে কথা হয়েছিল জিতেন্দ্র তিওয়ারির। তবে সেই ফোনে ঠিক কী কী কথা হয়েছে, তা জানাননি মেয়র। তিনি বলেন, “বাবুল সুপ্রিয় কাপুরুষ, তাই সামনাসামনি লড়াই না করে ফোনে হুমকি দিচ্ছেন। আমি তো ওনাকে সামনাসামনি লড়াইয়ের আহ্বান জানাচ্ছি।” পাশাপাশি জিতেন্দ্র তিওয়ারি ব্যঙ্গাত্মক সুরে বলেন, ওনাকে প্রধানমন্ত্রী ভাল মন্ত্রক দেননি, তো আমি কী করতে পারি? সেই রাগ আমার উপর প্রকাশ করে কী লাভ? সাংসদকে উদ্দেশ্য করে মেয়র পরামর্শ দেন, “আসানসোলের আবহাওয়া প্রচণ্ড গরম। উনি বরং গাছপালা লাগান পরিবেশ ঠান্ডা হবে।”

fir

অন্যদিকে, মেয়রের করা হুমকির অভিযোগ অস্বীকার করলেও ফোন করার বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। তিনি বলেন, “চেয়ারে বসে থেকে তৃণমূলের গুন্ডারাই এইসব কাজ করে। হুমকি দেওয়া, অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ করার মতো কাজ ওনারাই করেন।” সাংসদ জানান, “আমি ফোন করেছিলাম। কিন্তু সেটা কাজের স্বার্থে, আসানসোলের মানুষের স্বার্থে। পাশাপাশি, মেয়রকে সংযত হতেও বলি।” মেয়রের নাম না করে তিনি বাবুল বলেন, ” মিথ্যে শিশুদের মত লড়াই না করে, মিথ্যে মামলায় সময় নষ্ট না করে, আমাকে সহযোগিতা করুন এতে আসানসোলেরই উন্নতি হবে।”

babul

[আরও পড়ুন: মহিলাদের সামনে রেখে পুলিশ প্রতিরোধ, তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ খেজুরিতে]

জানা গিয়েছে, দুর্গাপুর ও জামুড়িয়ার দলীয় কার্যালয় দখল করার পর জিতেন্দ্র তিওয়ারি বাবুল সুপ্রিয়র নাম করে বলেছিলেন, এক বাপের বেটা হলে বাবুল সামনাসামনি লড়াই করুন। এর আগে ভোটের প্রচারেও একই ধরনের ভাষা মেয়রের মুখ থেকে শোনা গিয়েছিল। পশ্চিম বর্ধমানের বিজেপি জেলা সভাপতি লক্ষ্মণ ঘড়ুই বলেন, “মেয়র লাগাতার বাবুল সুপ্রিয়র নামে অশালীন ভাষা প্রয়োগ করছিলেন। কতদিন ধৈর্য্য ধরে বসে থাকবেন তিনি।তাই সাংসদ এদিন মেয়রকে সেই আক্রমণেরই উত্তর দিয়েছেন। তবে সেখানে কোনও গালিগালাজ হয়নি। মিথ্যে অভিযোগ করছেন জিতেন্দ্র তিওয়ারি।” সব মিলিয়ে শাসক-বিরোধী কোন্দলে উত্তপ্ত আসানসোল। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement