৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

নিজস্ব সংবাদদাতা, বনগাঁ: ‘জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে গেরুয়া হাফ প্যান্ট পরিয়ে রাস্তা হাঁটাব।’ ভোট জিতেই রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রীকে হুমকি দিলেন বনগাঁয় বিজেপির সদ্য নির্বাচিত সাংসদ শান্তনু ঠাকুর। নবনির্বাচিত সাংসদের বক্তব্য, যে মতুয়াদের সমর্থনেই ক্ষমতায় এসেছিল তৃণমূল, সেই মতুয়াদেরই অবজ্ঞা করার ফল পেয়েছে এবার। আর সেই মতুয়া ম্যাজিকেই তিনি জিতেছেন।

[আরও পড়ুন: ওয়ার্ডভিত্তিক ফলাফলে পিছিয়ে, বর্ধমানের তিনটি পুরসভা বাঁচাতে মরিয়া তৃণমূল]

এ রাজ্যের ভোট-রাজনীতিতে মতুয়ারা বড় ফ্যাক্টর। মতুয়াদের বড়মা প্রয়াত বীণাপাণি দেবীর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে স্নেহ করতেন। গত লোকসভা ভোটে বনগাঁ কেন্দ্রে বড়মার বড় ছেলে কপিলকৃষ্ণ ঠাকুরকে প্রার্থী করে তৃণমূল। তিনি জিতেও যান। কপিলকৃষ্ণের মৃত্যুর পর উপনির্বাচনে জিতে সাংসদ হন তাঁর স্ত্রী মমতাবালা ঠাকুর। এবারও বনগাঁ কেন্দ্রে তাঁকে প্রার্থী করেছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উলটোদিকে বড়মা ছোট ছেলে মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর আবার বিজেপি ঘনিষ্ঠ। মমতাবালার বিরুদ্ধে বনগাঁয় গেরুয়া শিবিরের প্রার্থী হন মঞ্জুলকৃষ্ণের ছোট ছেলে শান্তনু। লক্ষাধিক ভোটে জিতে সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। শুক্রবার বিকেলে গাইঘাটার ঠাকুরবাড়ি থেকে দলের জয়ী প্রার্থী শান্তনু ঠাকুরকে নিয়ে বিজয় মিছিল বের করেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। হুডখোলা জিপে এলাকা পরিক্রমা করেন সদ্য নির্বাচিত সাংসদ।

এদিকে শান্তনু ঠাকুরের জয়ে যখন ঠাকুরবাড়ির একটি অংশে উৎসবে মেজাজ, তখন অন্য অংশ মনমরা। কারণ, সেখানে থাকেন বনগাঁ কেন্দ্রের প্রাক্তন সাংসদ ও পরাজিত তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী মমতাবালা ঠাকুর। লোকসভা ভোটে পরাজয়কে অবশ্য বড় করে দেখতে নারাজ তিনি। মমতাবালা ঠাকুরের দাবি, মতুয়ারা তাঁকেই ভোট দিয়েছেন। তাই গতবারের থেকে এবার তাঁর প্রাপ্ত ভোট বেশি। কিন্তু বাম-বিজেপির অনৈতিক যোগসাজশে জিতেছেন শান্তনু।

দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং