৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

খড়গপুরে তুঙ্গে বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, হোর্ডিংয়ে নেই তারকা বিধায়কের ছবি, ক্ষুব্ধ হিরণ

Published by: Sayani Sen |    Posted: December 5, 2021 2:22 pm|    Updated: December 5, 2021 3:26 pm

Picture of Hiran Chatterjee not in the hoarding at kharagpur surfaces new tension inside BJP । Sangbad Pratidin

অংশুপ্রতিম পাল, খড়গপুর: আপাতত বিজেপি সাংসদ এবং বিধায়কের অনুগামীদের দ্বন্দ্বে সরগরম খড়গপুরের রাজনৈতিক মহল। কম্বল বিতরণী অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে মাত্র কয়েকদিন আগেই দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) এবং হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের অনুগামীদের সংঘাতের জল থানা পর্যন্ত গড়িয়েছিল। স্থানীয় এক বিজেপি নেত্রী দিলীপ ঘোষের এক অনুগামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন তিনি। আর এবার পোস্টারে বিধায়কের ছবি না থাকায় আবার চরমে দু’পক্ষের সংঘাত।

খড়গপুরে সাংসদ কার্যালয়ের আশপাশ বিজেপির (BJP) পোস্টার এবং হোর্ডিংয়ে ঢেকে গিয়েছে। বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি হওয়ার জন্য ওই পোস্টার, হোর্ডিংয়ে অভিনন্দন জানানো হয়েছে দিলীপ ঘোষকে। হোর্ডিংয়ে অমিত শাহ, জেপি নাড্ডা, শুভেন্দু অধিকারী, সুকান্ত মজুমদার, দিলীপ ঘোষের ছবি রয়েছে। তবে ওই হোর্ডিংয়ে নেই বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের ছবি। আর তা নিয়ে চরমে সংঘাত। তবে কি বিজেপিতে ব্রাত্য হিরণ, বারবার চতুর্দিকে সেই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে। অনেকেই বলছেন, রেলশহরে বিজেপির অন্তর্দ্বন্দ্ব যে চরমে, তা এই পোস্টারেই প্রমাণ পায়।

[আরও পড়ুন: নাগাল্যান্ডে ‘সন্ত্রাস দমন’ অভিযানে গুলি নিরাপত্তারক্ষীদের! বহু নিরীহ নাগরিকের মৃত্যু]

বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ যদিও এ বিষয়টিতে আমল দিতে নারাজ। তাঁর দাবি, “কে বা কারা হোর্ডিং তৈরি করেছে তা জানা যায়নি। যারা হোর্ডিং তৈরি করেছে, তারা পছন্দসই নেতার ছবি দিয়েছেন। কেন হিরণের (Hiran Chatterjee) ছবি নেই, সে বিষয়ে আমি কিছু বলতে চাই না।” বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়ও বিষয়টি নিয়ে বিশেষ মাথা ঘামাতে নারাজ। দিলীপ ঘোষকে খানিকটা খোঁচা দিয়ে হিরণ বলেন, “পোস্টারে কার ছবি আছে আর কার নেই, তা নিয়ে মাথা ঘামাই না। আমার বাড়িতে সকলের ছবি রয়েছে। এ নিয়ে কিছু বলব না। খড়গপুরে রেলের ৩০০ একর জমি রয়েছে। সেগুলির উন্নতি নিয়ে ভাবছি। আদিবাসী বিশ্ববিদ্যালয়, এইমস, মেডিক্যাল কলেজ এবং নার্সিং কলেজ তৈরি করার চেষ্টা করছি। অনেকে সাংসদ তো ছিলেন। তাঁরা খড়গপুরের জন্য কিছুই করেননি।”

বিজেপির অন্দরের কোন্দলকেই হাতিয়ার করেছে শাসকদল। স্থানীয় তৃণমূল নেতা প্রদীপ সরকার জানান, “এটা হওয়ারই ছিল। কারণ, নির্বাচনের সময় হিরণ চট্টোপাধ্যায় অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তবে এখনও প্রতিশ্রুতিপূরণ করতে পারেননি। সে কারণে বিজেপি কর্মীরা সাধারণ মানুষের কাছে মুখ দেখাতে পারছেন না। খড়গপুরে উন্নতি কিছুই হচ্ছে না। শুধু গোষ্ঠীদ্বন্দ্বই হচ্ছে।”

উল্লেখ্য, হিরণ নির্বাচনে জেতার পর থেকেই খড়গপুরে (Kharagpur) বিজেপির গোষ্ঠীকোন্দল চরমে পৌঁছেছে। দিলীপ ঘোষ এবং হিরণের সম্পর্ক যে মোটেও মধুর নয়, সে বিষয়টি জানেন প্রায় সকলেই। কোনও দলীয় অনুষ্ঠানেই দেখা যায় না তারকা বিধায়ককে। শুধু তাই নয় দিলীপ ঘোষের উপস্থিতিতে নিজের বিধানসভা এলাকাতেও দেখা যায় না হিরণকে। তবে বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি এলাকা থেকে চলে যাওয়ার পর ফের খড়গপুরে দেখা যায় হিরণকে। নিজে নানা কর্মসূচি করেন তারকা বিধায়ক। তবে তাতেও দিলীপ ঘোষকে অংশ নিতে দেখা যায়নি। সেই গোষ্ঠীদ্বন্দ্বেরই যে ক্রমশ বহিঃপ্রকাশ ঘটছে সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই।

[আরও পড়ুন: চাপে আম্বানির Jio! ভারতে ইন্টারনেট ব্যবসা শুরুর আবেদন এলন মাস্কের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে