১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সহজে মাথা গরম অভিনেতারা করেন না। কারণ তাঁরা খুব ভালমতোই জানেন সাংবাদিকদের প্রশ্নে মাথা গরম করলে, তাতে সবসময় হিতে বিপরীতই হয়। তার উপর থাকে নেটদুনিয়ায় ট্রোল হওয়ার আশঙ্কা। কিন্তু শাহিদ কাপুর বোধহয় ক্ষণিকের জন্য তা ভুলে গিয়েছিলেন। তাই সাংবাদিক বৈঠতে চুমুর প্রশ্নে এবার মেজাজ হারালেন শাহিদ। সাংবাদিককে এর জন্য দু-চার কথা শুনিয়েও দেন তিনি। এমনকী, পালটা প্রশ্নে নিজের বয়ানও বদলে নেন শাহিদ।

কবীর সিং’ ছবির ট্রেলার লঞ্চে এসেছিলেন শাহিদ কাপুরকিয়ারা আডবানী। সেখানে এক সাংবাদিক কিয়ারাকে প্রশ্ন করেন, “কিয়ারাজি, আপনার আর শাহিদের ক’টা চুমুর দৃশ্য রয়েছে ছবিতে?” সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের উত্তরে কিন্তু মেজাজ হারাননি কিয়ারা। তিনি বোধহয় বুঝেই গিয়েছিলেন, ছবিতে চুমুর দৃশ্য থাকবেই। চিত্রনাট্যের খাতিরে তাঁদেরও তা করতে হয়। তাই সাংবাদিক বৈঠকে এমন প্রশ্ন ওঠা অস্বাভাবিক নয়। তাই হাসিমুখেই প্রশ্নের উত্তর দেন কিয়ার। বলেন, “আমি গুনিনি। আপনাকে ২১ জুন দেখতে হবে।” এমনিতেই প্রশ্নের পর একটি দুষ্টু হাসির রোল উঠেছিল। কিন্তু কিয়ারার উত্তরের পর সেই হাসি আরও প্রাণখোলা হয়ে যায়। সবাই হালকাভাবেই বিষয়টি নেন।

[ আরও পড়ুন: গরমের ছুটিতে পোয়াবারো ছোটদের, ছোটপর্দায় রোজ নতুন ছবি ]

কিন্তু শাহিদ এই প্রশ্ন একেবারেই ঠাট্টার ছলে নিতে পারলেন না। কিয়ারা থামতে না থামতেই তিনি বলেন, “ওর জন্যই টাকা লাগে।” এখানেই থামেননি শাহিদ। এরপর প্রোডাকশনের লোকজনকে নির্দেশ দেয় চেয়ার আনতে। আর সেই চেয়ার যেন পরিষ্কার করে দেওয়া হয়। কারণ স্টেজে যে চেয়ারটি রয়েছে, তা ধুলোয় ভরতি। অথচ পাশের চেয়ারে দিব্যি বসে পড়লেন কিয়ারা। তিনি কিন্তু কোনও ধুলো নিয়ে অভিযোগ তোলেননি। বোঝাই যাচ্ছিল, শাহিদ এমন প্রশ্নে বেশ চটেছেন। কিন্তু তাতে একটুও লক্ষ্যচ্যুত হননি ওই সাংবাদিক। তিনি ফের প্রশ্নটি করেন কিয়ারাকেই। শাহিদকে কিন্তু তিনি একবারও কিচ্ছু জিজ্ঞাসা করেননি।

কিন্তু মেজাজ এবারও আয়ত্ত্বে রাখতে পারলেন না শাহিদ। বললেন, “আপনার কি অনেকদিন ধরে কোনও গার্লফ্রেন্ড নেই?” সঙ্গে সঙ্গেই শাহিদকে পালটা প্রশ্ন করেন সাংবাদিক। বলেন, “আপনি বললেন না, টাকাটা ওরই জন্য?” কিন্তু কিছুক্ষণ আগেই যা বলেছিলেন, তা মেনে নিতে অস্বীকার করেন অভিনেতা। বয়ান বদলে বলেন, “আমি বলেছি, যদি দেখতে হয়, টাকা দিতে হবে। আমি এটা বলিনি। এটা তুই বুঝেছিস। তোর মনে ওটাই আছে।”

শাহিদ যে সাংবাদিককে সরাসরি ‘তুই’ বলে সম্বোধন করেছেন, তা মেনে নিতে পারছেন না অনেকেই। ইতিমধ্যেই অনেকে এমন মন্তব্যের নিন্দা করতে শুরু করেছেন। সোশ্যাল মিডিয়াতেও শাহিদের এই গোটা প্রতিক্রিয়া নিয়ে লিখেছেন কেউ কেউ।

[ আরও পড়ুন: গডসেকে ‘সন্ত্রাসবাদী’ বলার জের! কমল হাসানকে লক্ষ্য করে ছোঁড়া হল চপ্পল ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং