৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দর্শককে হাস্যরসে সম্বৃদ্ধ করতে তাঁর জুড়ি মেলা ভার। আট থেকে আশি প্রত্যেকেই তাঁর গুণমুগ্ধ। তাঁর শোয়ে চোখ রেখে প্রাণ খুলে হাসার জন্য গোটা সপ্তাহ অপেক্ষা করেন ভক্তরা। নিজের ‘ব্যাড বয়’ ইমেজ ঝেড়ে ফেলে পুরনো ভালবাসা ফিরে পেয়েছেন তিনি। কিন্তু সেই কপিল শর্মার বিরুদ্ধেই এবার সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে নেটিজেনরা।

[আরও পড়ুন: ফিরছে ভূতুড়ে কমেডি, ভুলভুলাইয়া ২-এর ফার্স্ট লুকে চমকে দিলেন কার্তিক]

কেন? আসলে এক নেটিজেনের দাবি, মহিলাদের অপমান করেছেন জনপ্রিয় এই কমেডিয়ান। রবিবার একটি টুইট করেন এক যুবক। যাঁর টুইটার হ্যান্ডেলটির নাম আওয়ারা লড়কা রাজ। তাঁর দাবি, কপিল নাকি বলেছেন, ‘মহিলাদের কখনও সম্মান দিতে নেই। দিলেই তারা ভালবেসে ফেলে। তাহলেই বিয়ে করতে হয়। আর তারপরই বাবা হতে হয়। আমি এত অল্প বয়সে বাবা হতে চাই না।’ কিন্তু কপিল ঠিক কোথায় এমন কথা বলেছেন তা উল্লেখ করেনি ওই যুবক। সোশ্যাল মিডিয়ায় কপিল যে এমন কিছু লেখেননি, তা নিশ্চিত। কিন্তু ওই যুবকের টুইটেই সরগরম হয়ে ওঠে সোশ্যাল দুনিয়া। অনেকেই যুবকের টুইটটি রিটুইট করায় তা ভাইরাল হতে বিশেষ সময় লাগেনি।

তারপরই থেকেই কপিলকে তুলোধোনা করতে শুরু করেছেন অনেকে। একজন অভিনেতার থেকে এমন মন্তব্য অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। এক মহিলা আবার বিরক্তি প্রকাশ করে লেখেন, ‘টিভিতে ভুলভাল নানা মন্তব্য করেন কপিল। তাই সোশ্যাল সাইট থেকে তাঁকে ব্লক করে দেওয়া উচিত। এমনকী তাঁর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগও জানানো উচিত।’ তবে এতসব সমালোচনায় নিজেই জল ঢেলে দিয়েছেন কপিল। টুইট করে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে দেন তিনি।

এক নেটিজেনের টুইটের জবাবে তাঁকে বোন সম্বোধন করে কপিল লেখেন, “আপনি রিটুইট করার আগে ফ্যাক্ট চেক করে নিতে পারতেন। আমি এসব কিছুই বলিনি। বাকি রামজি সব ঠিক করবেন। ধন্যবাদ।” অর্থাত আওয়ারা লড়কা রাজ নামের টুইটার হ্যান্ডেলটি থেকে যে টুইটটি ভাইরাল হয়েছিল, সেসব কথা যে কপিল বলেননি, সেটাই স্পষ্ট করে দিলেন অভিনেতা। কপিলের টুইটের পর অবশ্য এনিয়ে আর কোনও আলোচনা হয়নি।

[আরও পড়ুন: ফের মা হচ্ছেন লিজা হেডেন, সমুদ্র সৈকতে বিকিনি পরা ছবিতে প্রকাশ্যে অভিনেত্রীর ‘বেবি বাম্প’]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং