BREAKING NEWS

২০ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ৫ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

উত্তর-পূর্বে প্রবল অশান্তির মাঝেই আজ রাজ্যসভায় পরীক্ষার মুখে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: December 11, 2019 9:41 am|    Updated: December 11, 2019 12:08 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বেশ লড়াই করে প্রাথমিক ধাপগুলো পেরতে হয়েছে। এবার পরবর্তী ধাপে পা রাখতে চলেছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৯। সোমবার মাঝরাতে লোকসভায় পাশ হওয়ার পর আজ দুপুরে রাজ্যসভায় পেশ হবে বিলটি। সূত্রের খবর, বিলটি পেশের পর ৬ ঘণ্টা ধার্য করা হয়েছে আলোচনার জন্য। যাতে অংশ নেবেন সাংসদরা। তবে প্রশ্নোত্তর পর্ব আজকের মতো বাতিল করে দেওয়া হয়েছে। বিল পেশের আগে বিজেপির সংসদীয় কমিটি একটি বৈঠক করেছে বলে সূত্রের খবর।

সূত্রের খবর, তৃণমূল বিলের উপর ২০টি সংশোধনী প্রস্তাব আনতে চলেছে। এ নিয়ে প্রথমে ভাষণ রাখবেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ ব্রায়েন। শিব সেনার সাংসদরা ওয়াকআউট করতে চলেছেন। বিলের প্রতিবাদে আজও উত্তপ্ত অসম, ত্রিপুরা। পথে প্রতিবাদ মিছিলের পাশাপাশি আগরতলাগামী বেশ কয়েকটি ট্রেন বাতিল করা হয়েছে।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৯ পেশ ও পাশ নিয়ে অসম, ত্রিপুরায় জোরদার বিক্ষোভের মাঝেই রাজ্যসভায় তা পাশ করিয়ে দ্রুত আইন প্রণয়নের পথে হাঁটতে চাইছে কেন্দ্র। লোকসভার ফলাফল ভালই। ৩১১ – ৮০ ভোটে সংসদের নিম্নকক্ষে পাশ হয়ে গিয়েছে বিলটি। একাধিক প্রতিকূলতার মধ্যে দিয়ে রাজ্যসভায় বিল পাশ করানো কিছুটা চিন্তার হয়ে দাঁড়িয়েছে সরকারপক্ষের কাছে। যা নিয়ে বিজেপির অন্দরেও আলোচনা চলেছে। তাঁদের আশঙ্কা, রাজ্যসভায় পরীক্ষা কিছুটা কঠিন হতে চলেছে। কারণ, এনডিএ’র অন্যতম শরিক জেডিইউয়ের সাংসদদের মধ্যে বিদ্রোহের আঁচ দেখা দিয়েছে। তাঁদের একাংশ নীতীশ কুমারকে চিঠি দিয়ে বিল নিয়ে এককভাবে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে বারণ করেছেন বলে সূত্রের খবর।

[ আরও পড়ুন: CAB ঘিরে অগ্নিগর্ভ অসম, পথ পালটাতে বাধ্য হলেন মুখ্যমন্ত্রী]

এবার আসা যার রাজ্যসভার সংখ্যাতত্বে। রাজ্যসভার মোট আসন সংখ্যা ২৪৫। সেই হিসেবে বিল পাশ করাতে প্রয়োজন ১২৩ জন সাংসদের সমর্থন। তবে, এই মুহূর্তে ৭টি আসন ফাঁকা পড়ে আছে। তাই, ম্যাজিক ফিগার কমে দাঁড়িয়েছে ১২০। এই মুহূর্তে দল হিসেবে একা বিজেপির হাতেই রয়েছে ৮৩ জন সাংসদ। বিজেপির অন্যান্য জোটসঙ্গীদের মিলিয়ে এনডিএ এবং বিজেপি পন্থী দলগুলির মোট সাংসদ সংখ্যা ১১৯। অর্থাৎ, সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য প্রয়োজন মাত্র ১টি অতিরিক্ত আসন।

গেরুয়া শিবিরের আশা, বিজেডি, টিআরএস এবং ওয়াইএসআর কংগ্রেস পার্টি তাঁদের সমর্থন করবে। তা যদি নাও হয়, অন্তত এই দলগুলি ওয়াকআউট করবে। এই তিন দল ওয়াকআউট করলে সহজেই পাশ হয়ে যাবে বিল। শিব সেনা প্রথমে বিপক্ষে ভোট দেওয়ার কথা জানালেও, পরে নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থে ওয়াকআউটের সিদ্ধান্ত নেয়। অন্যদিকে, বিরোধী শিবির চেষ্টা করছে এনডিএ’র জোটসঙ্গীদের মধ্যে কাউকে দলে টানার। সবমিলিয়ে, রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল, ২০১৯ পাশ করাতে হলে, এনডিএ-কে কতটা লড়তে হয়, সেদিকে আজ সারাদিন নজর থাকবে সকলের।

[ আরও পড়ুন: ‘মেক ইন ইন্ডিয়া থেকে রেপ ইন ইন্ডিয়া হচ্ছে দেশ’, প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ অধীরের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement