BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বেঙ্গালুরুর কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী এক ব্যক্তি

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: April 27, 2020 12:50 pm|    Updated: April 27, 2020 12:50 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বেঙ্গালুরুর কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে ঝাঁপ দিতে আত্মাঘাতী এক ব্যক্তি। করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় অবসাদের জেরে আত্মঘাতী হন বলেই জানায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। সংক্রমিত এই ব্যক্তি কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন বলেও জানা যায়।

সোমবার সকাল ৯টা। বেঙ্গালুরুর ভিক্টোরিয়া হাসপাতালের ৬ তলার উপর থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হন বছর পঞ্চাশের এক ব্যক্তি। শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা থাকায় ২৪ এপ্রিল এই ব্যক্তিকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়। এরপরই তাঁর শরীরে কিডনির সমস্যাও ধরা পড়ে। তাই তাঁকে ডায়ালিসিস করার প্রয়োজনীয়তার কথা জানান চিকিৎসকরা। তবে আজ সকালে ৬ তলায় গিয়ে দমকলের প্রবেশ পথ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। ভারী কিছু পড়ার শব্দ শুনে হাসাপাতাল কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ব্যক্তিকে উদ্ধার করেন। হাসপাতালে নিয়ে গেলে জানা যায়, ঘটনাস্থলেই মারা গিয়েছেন ওই ব্যক্তি। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানা যায়, ব্যক্তি দ্রুত চিকিৎসায় সারা দিচ্ছিলেন। তাই কেন তিনি হঠাৎ আত্মঘাতী হলেন তার কারণ সকলেরই অজানা।

[আরও পড়ুন:ভিনরাজ্যে আটকে পড়া বাংলার পড়ুয়া ও বাসিন্দাদের ফেরাচ্ছেন মমতা]

শনিবার অর্থাৎ ২৫ এপ্রিল রাতে তাঁকে শেষবার ডায়ালিসিস করা হয়। ভিক্টোরিয়া হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে ডাঃ জয়ন্তী জানান, আত্মঘাতী হয়েই মারা যান ওই ব্যক্তি। তবে তাঁকে বাঁচানোর সকল সম্ভাব্য চেষ্টা করা হয় হাসপাতালের তরফ থেকে। তবে সূত্রের খবর, কিডনি সহ করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন এই ব্যক্তি। তাই শারীরিকভাবে ওই ব্যক্তি ক্রমে সুস্থ হয়ে উঠলেও মানসিকভাবে ধীরে ধীরে অবসাদে ভেঙে পড়েন। তার উপর করোনার আতঙ্ক তাঁকে আরও বেশি গ্রাস করে। তবে করোনা আক্রান্তদের জন্য মাঝে মধ্যেই হাসপাতালে মনোবিদদের নিয়ে আসা হত বলে জানা যায়।

[আরও পড়ুন:বরাতের মূর্তি তৈরি শেষেও দেখা নেই ক্রেতার, চরম অনিশ্চয়তায় ডোকরাশিল্পীরা]

তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নজরদারি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে মৃতের পরিবার। কীভাবে সকলের নজর এড়িয়ে একজন ব্যক্তি ৬ তলায় চলে গেলেন তা নিয়ে পশ্ন থেকেই যাচ্ছে। ঘটনায় তদন্তরে দাবি করে মৃতের পরিবার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement