৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: খরস্রোতা নদীতে ডুবে যাচ্ছিল ১৪ বছরের এক কিশোরী। নিজেদের প্রাণ বিপন্ন করে তাকে বাঁচালেন পাঁচজন সিআরপিএফ জওয়ান। ঘটনাটি ঘটেছে জম্মু ও কাশ্মীরের বারামুলা জেলায়। সোমবার এই ঘটনার ভিডিও প্রকাশ্যেই আসতেই ভাইরাল হয়েছে। আর তারপরই ওই পাঁচজন জওয়ানের প্রশংসায় পঞ্চমুখ নেটিজেনরা।

[আরও পড়ুন- সাইবার সন্ত্রাসের তদন্তেও এবার এনআইএ, লোকসভায় পাশ সংশোধনী বিল]

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বারামুল্লা জেলার একটি প্রত্যন্ত এলাকায় বসবাস করে নাগিনা নামে ওই কিশোরী। সম্প্রতি সে বাড়ির কাছে থাকা পাহাড়ি নদীতে স্নান করতে গিয়েছিল। কিন্তু, আচমকা পা পিছলে নদীতে পড়ে যায়। নদীতে খুব একটা জল না থাকলেও গতিবেগ মারাত্মক ছিল। ফলে পাথরে ধাক্কা খেতে খেতে ক্রমশ এগিয়ে যেতে থাকে ওই কিশোরী। চেষ্টা করেও নদীর পাড়ে যেতে পারছিল না। বিষয়টি চোখে পড়ে ওই এলাকায় টহলদারিতে থাকা দুই সিআরপিএফ কনস্টেবল এমজি নায়ডু ও নাল্লা উপেন্দ্রর। সঙ্গে থাকা বাকি জওয়ানদের এই ঘটনার কথা জানিয়ে নদীর পাড় ধরে দৌড়তে থাকেন তাঁরা। তারপর কিছুটা দূরে গিয়ে সোজা নদীতে ঝাঁপ মারেন। কিন্তু, জলের গতিবেগ এতটাই বেশি ছিল যে কিশোরীকে কিছুতেই উদ্ধার করতে পারছিলেন। তাই তাঁদের সাহায্য করতে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন আরও তিনজন জওয়ান। শেষ পর্যন্ত পাঁচজনের অক্লান্ত চেষ্টায় রক্ষা পায় ওই কিশোরী। পরে তাকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভরতি করা হয়। বর্তমানে কিশোরীটি সুস্থ আছে বলে জানা গিয়েছে।

ওই সময়ে তোলা ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, খরস্রোতা নদীতে ওই কিশোরীকে ভেসে যেতে দেখে ঝাঁপিয়ে পড়ছেন একজন। কিন্তু, তিনি পারছেন না দেখে আরও একজন এসে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এরপরই দৌড়ে এসে তাঁদের সাহা্য্য করতে থাকেন তিনজন। তাঁদের আপ্রাণ চেষ্টায় প্রাণ রক্ষা হয় ওই কিশোরীর।

[আরও পড়ুন- ‘পালিয়ে বিয়ে করলে বাড়বে কন্যাভ্রূণ হত্যা’, সাক্ষীর বিরোধিতায় টুইট বিজেপি বিধায়কের]

তাঁদের মেয়েকে এইভাবে রক্ষা করার জন্য ওই জওয়ানদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন নাগিনার বাবা-মা। ওই জওয়ানরা না থাকলে কী হত তা ভেবেই আতঙ্কে কেঁপে উঠছেন তাঁরা। এই ঘটনার ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট হতেই জওয়ানদের প্রশংসায় মেতে উঠেছেন নেটিজেনরা। কেউ বলছেন, কাশ্মীরের বাসিন্দারা জওয়ানদের লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়ে। কিন্তু, তাদের কাউকে মৃত্যুর মুখে দেখে নিজেদের কর্তব্যই পালন করেন জওয়ানরা। আগাগোড়া এটাই দেখে আসছি। এবারও তার অন্যথা হয়নি। বীরহৃদয় ওই জওয়ানদের কুর্নিশ জানাই। কেউ আবার লিখেছেন, দেশবাসীকে রক্ষা করতে গিয়ে জওয়ানরা নিজেদের জীবনের মায়াও করেন না। এই ঘটনা ফের তা প্রমাণ করল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং