৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মুম্বই বিমানবন্দর থেকে ধরা পড়ল দাউদ ইব্রাহিমের ভাইপো রিজওয়ান কাসকার। বুধবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চের তোলাবাজি দমন শাখা। বর্তমানে সে পুলিশ হেফাজতে আছে বলে জানা গিয়েছে।

[আরও পড়ুন- ভয়াবহ বন্যায় ভাসছে বিহার, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬৭]

মুম্বই পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দুদিন আগে মুম্বই বিমানবন্দর থেকে দাউদ ঘনিষ্ঠ আফরোজ ওয়াডারিয়া ওরফে আহমেদ রাজাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। দাউদের ডানহাত ছোটা শাকিলের হয়ে হাওয়ালার কারবার দেখভাল করত সে। এর জেরে গত ২৬ জুন আফরোজের বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিস জারি করা হয়েছিল। অবশেষে মঙ্গলবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তোলাবাজির অভিযোগে ধৃত আফরোজকে জেরা করেই রিজওয়ানের নাম জানা যায়। এরপর তার সন্ধানে তল্লাশি চালাতে নামে পুলিশ। গোপন সূত্রে খবর আসে গ্রেপ্তারি এড়াতে বুধবার রাতে ভারত ছাড়ার পরিকল্পনা নিয়েছে দাউদের ভাইপো। বুধবার রাতে পরিকল্পনা অনুযায়ী মুম্বই বিমানবন্দরে এসেছিল রিজওয়ান। সেইসময়ই তাকে গ্রেপ্তার করেন বিমানবন্দরে আগে থেকেই হাজির থাকা মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা।

এপ্রসঙ্গে মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চের ডেপুটি কমিশনার জানান, একটি তোলাবাজির মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছিল আহমেদ রাজাকে। তাকে জেরা করে দাউদ ইব্রাহিম কাসকারের ছোটভাই ইকবাল কাসকারের ছেলে রিজওয়ানের নাম পাওয়া যায়। এরপরই খবর আসে যে বুধবার রাতে দেশ ছাড়ার চেষ্টা করছে সে। সেই খবরের ভিত্তিতে মুম্বই বিমানবন্দর থেকে তাকে আটক করা হয়ে। প্রাথমিক জেরার পর তোলাবাজির মামলায় তার জড়িত থাকার প্রমাণ মেলে। তাই তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ হেপাজতে পাঠানো হয়েছে।

[আরও পড়ুন- ট্রেন থামিয়ে লাইনেই প্রস্রাব মোটরম্যানের, কুকীর্তির ভিডিও ঘিরে অস্বস্তিতে রেল কর্তৃপক্ষ]

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দাউদের ছোটভাই ও রিজওয়ানের বাবা ইকবাল কাসকর বর্তমানে মহারাষ্ট্রের একটি জেলে বন্দি আছে। দাউদের হয়ে মহারাষ্ট্রের বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের থেকে হুমকি দিয়ে টাকা তোলার অভিযোগ আছে তার নামে। তোলাবাজি চক্র চালানোর অভিযোগে মহারাষ্ট্র কন্ট্রোল অফ অর্গানাইজড ক্রাইম অ্যাক্ট (এমসিওসিএ)-র অধীনে মামলাও চলছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং