৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর গ্রেপ্তারির দিনেই ভাইরাল হল এক বিজেপি নেতার স্ত্রীকে চড় মারার ভিডিও। ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লিতে, বিজেপির সদর দপ্তরে। বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টির হওয়ার পরেই কমিটি তৈরি করে ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছেন দিল্লির বিজেপি সভাপতি মনোজ বাজপেয়ী। পাশাপাশি তাঁকে দল থেকে বহিষ্কারও করে দেওয়া হয়েছে। যদিও নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত বিজেপি
নেতা। উলটে তাঁর দাবি, স্ত্রী প্রথমে তাঁকে হেনস্তা করছিল তাই নিজেকে বাঁচানোর জন্য তিনি হালকা ধাক্কা দিয়েছেন। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে এখনও কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি। তাই কোনও তদন্ত শুরু করেনি পুলিশ। অভিযোগ দায়ের হলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন দিল্লি পুলিশের এক সিনিয়র আধিকারিক।

[আরও পড়ুন: মুম্বইয়ের ক্রফোর্ড মার্কেটে ভাঙল বহুতল, দমকলের তৎপরতায় এড়ানো গেল মৃত্যু]

স্থানীয় বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকরের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন বিজেপি নেতা আজাদ সিং। ২০১৯ সালে দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে দলীয় ইনচার্জের দায়িত্বে থাকা প্রকাশ জাভড়েকর নির্বাচন সংক্রান্ত বিষয় একটি বৈঠক ডেকেছিলেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর বাইরে বেরিয়ে এসে স্ত্রী ও দক্ষিণ দিল্লির প্রাক্তন মেয়র সরিতা চৌধুরির সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন আজাদ। আর সেসময় দিল্লির মেহরাউলি জেলার ওই কার্যকরী সভাপতি স্ত্রীকে সপাটে চড় মারেন বলে অভিযোগ।

ওই সময়ে তোলা একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, কয়েকজন মানুষ পাঁচিল ঘেরা জায়গায় একটি বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে আছেন। আচমকা এক মহিলার সঙ্গে সামনে দাঁড়িয়ে থাকা ব্যক্তির ধাক্কাধাক্কি হচ্ছে। এরপর দেখা যাচ্ছে ওই মহিলাটিকে আশপাশে থাকা মানুষরা দূরে সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। ওই ব্যক্তিটি আজাদ সিং ও তাঁর সঙ্গে বচসাকারী মহিলা সরিতা সিং বলেই দাবি ভিডিওটি যিনি পোস্ট করেছেন তাঁর।

[আরও পড়ুন: আইনের ছাত্রীকে লাগাতার ধর্ষণ, গ্রেপ্তার প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী চিন্ময়ানন্দ]

দিল্লির কয়েকজন বিজেপি নেতা জানিয়েছেন, দীর্ঘ কয়েক বছর ধরেই গন্ডগোল চলছিল ওই দম্পতির মধ্যে। তাঁরা একসঙ্গে থাকছিলেনও না। কিছুদিন আগে আজাদ সিং বিবাহ বিচ্ছেদের মামলাও দায়ের করেছেন। এর মাঝেই এই ঘটনা ঘটে গেল।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং