BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘প্রজ্ঞার বিরুদ্ধে প্রমাণ ছিল, ওকে টিকিট দেওয়া ঠিক হয়নি’, বিজেপিকে তোপ জোটসঙ্গীর

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 29, 2019 3:34 pm|    Updated: April 29, 2019 6:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সাধ্বী প্রজ্ঞাকে ভোপাল কেন্দ্রে প্রার্থী করা নিয়ে এবার শরিকদেরও তোপের মুখে বিজেপি। মালেগাঁও বিস্ফোরণের অভিযুক্ত সাধ্বীর বিরুদ্ধে প্রমাণ ছিল এটিএস আধিকারিক হেমন্ত কারকারের কাছে। তাই তাঁকে প্রার্থী করা ঠিক হয়নি। কোনও বিরোধী নেতা নয়, এ মন্তব্য করেছেন খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামদাস আতাওয়ালে। শহিদ হেমন্ত কারকারেকে নিয়ে বিজেপি প্রার্থীর এই মন্তব্যকেও তিনি সমর্থন করেন না বলেই জানালেন আতাওয়ালে।

[আরও পড়ুন: চতুর্থ দফায় ৭২ আসনে ভোটগ্রহণ, বিজেপির ঘাঁটিতে থাবা বসাতে মরিয়া বিরোধীরা]

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে আতাওয়ালে বলেন, “ওর নাম মালেগাঁও বিস্ফোরণ মামলায় জড়িয়ে। ওর বিরুদ্ধে এটিএস প্রধান হেমন্ত কারকারের হাতে যথেষ্ট প্রমাণ ছিল। কারকারে একজন শহিদ। তিনি আক্রান্তদের বাঁচানোর জন্য লড়াই করেছেন। আমি কারকারেকে নিয়ে সাধ্বীর করা মন্তব্যকে সমর্থন করি না। আমার মনে হয়, এ বিষয়ে আদালত যা সিদ্ধান্ত নেবে সেটাই চূড়ান্ত হওয়া উচিত।” উল্লেখ্য, এর আগে প্রজ্ঞা ঠাকুর দাবি করেছিলেন, তাঁর অভিশাপেই মুম্বই হামলার সময় মৃত্যু হয়েছে হেমন্ত কারকারের। জেলে থাকাকালীন কারকারে তাঁর উপর অত্যাচার করত। সেকারণেই, তাঁকে অভিশাপ দিয়েছিলেন সাধ্বী। বিজেপি প্রার্থীর এই মন্তব্যেরই বিরোধিতা করতে শোনা গেল কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে। তিনি আরও জানিয়ে দিলেন, সাধ্বীর মতো একজনকে টিকিট দেওয়া উচিত হয়নি বিজেপির। আতাওয়ালে বলেন, ‘আমার হাতে থাকলে আমি সাধ্বী প্রজ্ঞা ঠাকুরকে কোনওভাবেই টিকিট দিতাম না।’

[আরও পড়ুন: ইভিএমে প্রতীকের নিচে দলের নাম, বিজেপির বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে তৃণমূল]

রিপালিকান পার্টি অব ইন্ডিয়ার নেতা রামদাস আতাওয়ালে। তিনি আপাতত এনডিএ শিবিরে রয়েছেন। কেন্দ্রীয় সামাজিক ন্যায়বিচার মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রীর দল আরপিআই মহারাষ্ট্র এবং মধ্যপ্রদেশের কিছু অংশে প্রভাবশালী। আসলে, মুম্বই হামলার শহিদ হেমন্ত কারকারেকে নিয়ে সাধ্বী প্রজ্ঞার মন্তব্যের জেরে মহারাষ্ট্রে ধাক্কা খেয়েছে বিজেপির ভাবমূর্তি। যাতে ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে আতাওয়ালের পার্টিকেও। সেকারণেই হয়তো এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বিজেপির তারকা প্রার্থীর বিরোধিতা করলেন। স্বাভাবিকভাবেই সাধ্বী ইস্যুতে অস্বস্তি বাড়ছে গেরুয়া শিবিরের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement