BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রধানমন্ত্রীকে খুনের নির্দেশ! NIA’র হাতে হুমকি চিঠি

Published by: Paramita Paul |    Posted: September 4, 2020 1:41 pm|    Updated: September 4, 2020 4:12 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাত্র ২৪ ঘণ্টা আগেই প্রধানমন্ত্রীর টুইটার হ্যান্ডেল হ্যাক হয়েছে। এরপরই প্রধানমন্ত্রীকে খুনের হুমকি! ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (NIA)-এর হাতে এই সংক্রান্ত একটি ইমেল এসেছে। এরপরই নড়েচড়ে বসেছে দেশের গোয়েন্দা সংস্থাগুলি। বাড়ানো হয়েছে নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) নিরাপত্তাও।

সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, “একটি Email আইডি থেকে NIA কিছু ইমেল পেয়েছে। যেখানে বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং সরকারি এজেন্সিকে হুমকি দেওয়া হয়েছে।” কী লেখা হয়েছে ওই ইমেলে? ৮ আগস্ট রাতে পাঠানো ওই ইমেলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে সরাসরি খুনের হুমকি দেওয়া হয়েছে। প্রকাশিত ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, [email protected] ইমেল আইডি থেকে [email protected], এই আইডিতে ইমেলটি পাঠানো হয়েছে। লেখা হয়েছে, ইনস্ট্রাকশন: কিল নরেন্দ্র মোদি।

[আরও পড়ুন : ‘খাকি উর্দির প্রতি কখনও শ্রদ্ধা হারাবেন না’, IPS অফিসারদের বার্তা প্রধানমন্ত্রী মোদির]

এই ই-মেল প্রকাশ্যে আসার পরই তত্‍পর হয়েছে দেশের প্রত্যেকটি নিরাপত্তা সংস্থা। প্রধানমন্ত্রী নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপের (SPG) সঙ্গে আলোচনায় বসেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। পাশাপাশি তৎপর R&AW, ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো (IB), ডিফেন্স ইন্টেলিজেন্স এজেন্সিও। রাতারাতি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, ই-মেলটি দেশের বাইরে থেকে পাঠানো হয়েছে। কে বা কারা এই ছক কষছে তা জানতে তদন্ত শুরু করেছে নিরাপত্তা এজেন্সিগুলি। 

[আরও পড়ুন : ফের উত্তপ্ত কাশ্মীর, সেনা-জঙ্গি সংঘর্ষে গুরুতর আহত ভারতীয় সেনার মেজর]

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবারই টুইটারে narendramodi_in নামে প্রধানমন্ত্রীর ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপের এই অ্যাকাউন্টটি হ্যাক করা হয়।  হ্যাকাররা COVID-19 ত্রাণ তহবিলের জন্য অনুদান দেওয়ার আবেদন জানায়। ক্রিপ্টো কয়েনের মাধ্যমে এই অনুদান দিতে হবে বলে দাবি করে। এই দান পিএম ন্যাশনাল রিলিফ ফান্ডে দিতে বলা হয়। আরেকটি অসংলগ্ন টুইটে আবার লেখা হয়, “এই অ্যাকাউন্টটি জন উইক হ্যাক করেছে ([email protected]), আমরা পেটিএম মলকে হ্যাক করিনি”। এরপর কিছুক্ষণের মধ্যে এনআইএ-এর হাতে ওই চিঠিটি আসে। দুটি ঘটনার মধ্যে যোগও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement