BREAKING NEWS

১৯  মাঘ  ১৪২৯  শুক্রবার ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

ফের পিছোল নির্ভয়ার দোষীদের ফাঁসি, জানাল পাতিয়ালা হাউস কোর্ট

Published by: Paramita Paul |    Posted: January 31, 2020 5:25 pm|    Updated: January 31, 2020 6:22 pm

Nirbhaya case: Patiala House court postpones hanging on February 1.

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১ ফেব্রুয়ারি নির্ভয়ার দোষীদের ফাঁসি নয়। জানিয়ে দিল পাতিয়ালা হাউস কোর্ট। পরবর্তী রায়দানের আগে পর্যন্ত মৃত্যু পরোয়ানায় স্থগিতাদেশ জারি করা হয়েছে। তবে এদিনই সুপ্রিম কোর্টে নির্ভয়ার ধর্ষকের পবন গুপ্তার আরজি খারিজ করা হয়। তার দাবি ছিল, ২০১২ সালে ধর্ষণকাণ্ডের সময় সে নাবালক ছিল। কিন্তু পুলিশি তদন্তের সময় তাকে নাবালক হিসেবে দেখানো হয়নি। এ নিয়ে আগেই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিল পবনের আইনজীবী। সেসময় তার আরজি খারিজ করে দেওয়া হয়। কেন তার সেই আরজি খারিজ করা হল, এনিয়ে ফের সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয় তার আইনজীবী। শুক্রবার তার সেই আরজি খারিজ করে দেয় সুপ্রিম কোর্ট। এদিকে বিনয় শর্মার প্রাণভিক্ষার আরজি রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হয়েছে। সেই আরজি এখনও খারিজ করেননি রাষ্ট্রপতি। আইন বলছে, রাষ্ট্রপতি প্রাণভিক্ষার আরজি খারিজ ও রায় সংশোধনের আরজি খারিজের পরও দোষীদের ১৪ দিন সময় দিতে হয়। ফলে চার দোষীর ফাঁসি কবে হবে, তা এখনও অজানাই রইল।  

প্রসঙ্গত, পবনকে নাবালক প্রমাণ করতে ম্যাট্রিক পরীক্ষার একটি মার্কশিটও দাখিল করা হয়। এ প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি সাফ জানিয়ে দেন, মার্কশিটটি ২০১৭ সালে ইস্যু করা হয়েছে। ততদিনে পবনের ফাঁসির নির্দেশ দেওয়া হয়ে গিয়েছে। কেন তার আগে সার্টিফিকেট জমা করা হল না, তা নিয়ে বিচারপতি প্রশ্ন তুলেছেন।যদিও এদিন স্পষ্টভাষায় পবনের আরজি খারিজ করে দেওয়া হয়। তবে রাষ্ট্রপতির কাছে এখনও প্রাণভিক্ষার আরজি জানায়নি পবন।  

[আরও পড়ুন: ‘নরেন্দ্র মোদি আমারও প্রধানমন্ত্রী’, পাকিস্তানের মন্ত্রীকে কড়া উত্তর কেজরিওয়ালের]

ফাঁসির দু’দিন আগে ফের আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে নির্ভয়ার ধর্ষক অক্ষয় সিং। ১ ফেব্রুয়ারি  নির্ভয়াকাণ্ডে দোষী চারজনের ফাঁসি হওয়ার কথা ছিল। এই মর্মে ফাঁসির পরোয়ানা জারিও হয়ে গিয়েছিল। জারি হওয়া সেই মৃত্যু পরোয়ানার উপর স্থগিতাদেশ চেয়ে দিল্লির পাতিয়ালা হাউস কোর্টে আবেদন জানায় অক্ষয়। 

[আরও পড়ুন : পাঞ্জাবের কারখানা থেকে উদ্ধার কয়েক কোটির মাদক, গ্রেপ্তার আফগান নাগরিক-সহ ৪]

গত ১৭ জানুয়ারি মুকেশের প্রাণভিক্ষার আরজি খারিজ করে দিয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ‘কেন আরজি খারিজ করা হল?’ তা জানতে চেয়ে ফের সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন মুকেশ সিংয়ের আইনজীবী অঞ্জনা প্রকাশ।রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আইনজীবী বলেন, রাষ্ট্রপতির কাছে মুকেশের ডিএনএ নমুনা পেশ করা হয়নি। মানে মুকেশ গণধর্ষণে যুক্ত ছিল কি না, তা এখনও প্রমাণসাপেক্ষ। আর সেই কারণেই নিজের মক্কেলের মৃত্যুদণ্ডে স্থগিতাদেশের আরজি জানান তিনি। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে