২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনায় মৃতের আধপোড়া দেহ খাচ্ছে কুকুর, ভাইরাল ভিডিও ঘিরে বিতর্ক

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: August 9, 2020 3:31 pm|    Updated: August 9, 2020 3:31 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ বিতর্কে তেলেঙ্গানার (Telengana) আদিলাবাদের (Adilabad) প্রশাসন। করোনায় আক্রান্তের মৃতদেহে সৎকার করার সময় তা আধপোড়া অবস্থায় ফেলে যাওয়ার অভিযোগ উঠল স্থানীয় কর্পোরেশনের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে। শুধু তাই নয়, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিওতে অভিযোগ করা হয়েছে, শ্মশানে থাকা কুকুররা ওই আধপোড়া মৃতদেহ থেকেই মাংস খুবলে খেয়েছে। আর এই নিয়েই দেখা দিয়েছে তীব্র বিতর্ক। স্থানীয় মানুষ থেকে নেটিজেন– প্রত্যেকেই স্থানীয় প্রশাসনের সমালোচনায় মুখর। যদিও কর্পোরেশনের আধিকারিকরা সমস্ত অভিযোগ মানতে অস্বীকার করেছেন। তাঁদের দাবি, কোনও মৃতদেহই আধপোড়া অবস্থায় ফেলে রাখা হয় না। ওই কুকুরগুলো হয়তো কোনও পশুর মাংস খাচ্ছিল।

[আরও পড়ুন: অর্থনীতি নিয়ে মোদি সরকারের উপর আস্থা হারাচ্ছে আমজনতা, সমীক্ষার তথ্যে চাপে কেন্দ্র]

জানা গিয়েছে, ঘটনার সূত্রপাত গত ৫ আগস্ট থেকে। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ৪৪ বছর বয়সি ওই ব্যক্তিকে আদিলাবাদের রাজীব গান্ধী ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সেসে (Rajiv Gandhi Institute of Medical Sciences) নিয়ে যাওয়া হয়। জানা যায়, তিনি করোনা (Corona) আক্রান্ত। কিন্তু সেখানে ওই ব্যক্তির শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে হায়দরাবাদের গান্ধী হাসপাতালে রেফার করা হয়। শেষে নিরুপায় হয়ে একটি অ্যাম্বুল্যান্সে রোগীকে নিয়ে গান্ধী হাসপাতালের উদ্দেশে রওনা দেয় তাঁর পরিবার। কিন্তু পথে অবস্থা আরও খারাপ হয় ওই ব্যক্তির। সেই সময় কাজ করছিল না অ্যাম্বুল্যান্সের অক্সিজেন সিলিন্ডার। ফলে পথেই মারা যান ওই ব্যক্তি। এরপরই স্থানীয় কর্পোরেশনের তরফে ওই ব্যক্তির সৎকারের ব্যবস্থা করে তাঁর পরিবার। কিন্তু সেখানেও এবার এই বিপত্তি।

[আরও পড়ুন: ‘করোনামুক্ত’ অমিত শাহ! টুইট করেও মুছলেন মনোজ তিওয়ারি, সত্যিটা জানাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক]

তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় (Social Media) ভিডিও ভাইরাল হতেই নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসনও। ইতিমধ্যে গোটা ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন জেলাশাসক সিক্তা পটনায়েক। অতিরিক্ত জেলাশাসক জি সন্ধ্যারাণীর হাতে তুলে দিয়েছেন তদন্তভার। পাশাপাশি জানিয়েছেন, তদন্ত শেষ হলে দোষীদের উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement