১৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৩০ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মেনে চলব’, করোনা প্রতিরোধে মোদির সুরেই সোচ্চার চিদম্বরম

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: March 22, 2020 2:16 pm|    Updated: March 22, 2020 2:16 pm

P Chidambaram Supports Narendra Modi to prevent Corornavirus

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়ে গোটা দেশে পালন করা হচ্ছে ‘জনতা কারফিউ’। তবে সেই ডাকে নেই কোনও রাজনীতির রং। রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে করোনার বিরুদ্ধে একজোট হয়ে লড়াই চালিয়ে যেতে প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে দেশবাসীকে বাড়িতে থাকার অনুরোধ করলেন প্রবীণ কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরম।

রাজনীতির দরবারে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরমের মতানৈক্য থাকলেও করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নেমে একই সুরে কথা বলছেন সকলে। করোনা ভাইরাস রুখতে নরেন্দ্র মোদির ডাকে দেশের লড়াইয়ে সরকারের পাশেই রয়েছেন তিনি। তিনি জানান, “করোনা মোকাবিলায় আমরা দেশের প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে মেনে চলতে বাধ্য। আমার আশা, এই মারণ ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই চালাতে নৈতিক অস্ত্রকে হাতিয়ার করেই প্রতিটি মানুষ নিজেদের বাড়িতে গৃহবন্দি করে রাখবেন। আমি নিশ্চিত দেশের এই কঠোর পরিস্থিতিতে দেশবাসীকে ভবিষ্যতের বিদ্ধংসী অর্থনীতির হাত থেকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রী কোনও কঠিন পদক্ষেপ নেবেন। আমার আরজি আপাতত কয়েক সপ্তাহের জন্য পুরোপুরি লকডাউন করে দেওয়া হোক প্রতিটি শহর ও শহরতলিকে।”

তবে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কার মধ্যে অর্থনীতির এই বিপদের কথা বললেও তার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে দায়ী করেননি প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী। তবে তার আগে দেশে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বলে এদিন প্রকাশিত কলামেও উল্লেখ করেছেন তিনি। চিদম্বরম মনে করেন দেশের অর্থনৈতিক দুরবস্থার জন্য কোভিড-১৯ কে দায়ী করা ঠিক হবে না। এই সংক্রমণ শুরু হওয়ার আগেই দেশের জিডিপি’র উন্নয়নের হার কমতে শুরু করে। একই সঙ্গে তিনি আশঙ্কা করেছেন, দেশের ব্যবসা বাণিজ্য বড় ধাক্কা খাবে করোনা ভাইরাস নিয়ে এই আশঙ্কার পরিবেশে। 

[আরও পড়ুন: করোনার জের, ৩১ মার্চ পর্যন্ত বাতিল দেশের সমস্ত প্যাসেঞ্জার ট্রেন]

এদিন বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা চিদম্বরম কিছু পরামর্শও দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, সরকারকে এখন যেভাবে হোক ৫ লাখ কোটি টাকার সংস্থান করতে হবে। যা দিয়ে আগামী ছ’মাস লড়াই চালানো যাবে। প্রয়োজন প্রধানমন্ত্রী কিষাণ প্রকল্পের টাকা দ্বিগুণ করা। এখন এই প্রকল্পে প্রতি কৃষক পরিবারকে বছরে ৬ হাজার টাকা দেয় মোদি সরকার। এই টাকা বছরে ১২ হাজার করা দরকার বলেও মনে করেন চিদম্বরম।আগামী ভয়াবহ অর্থনীতির জন্য দুশ্চিন্তা প্রকাশ করেছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধীও।

[আরও পড়ুন: ছত্তিশগড়ে মাওবাদীদের সঙ্গে গুলির লড়াই, নিখোঁজ ১৪ জন নিরাপত্তারক্ষী]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে