২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি গত পাঁচ বছর ধরে সরকারি সংস্থাগুলিকে শোষণ করে বেসরকারি ফার্মগুলিকে সুবিধা পাইয়ে দিয়েছেন। দেশের স্বার্থ বিক্রি করেছেন। তিনি একজন দেশদ্রোহী।” শনিবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এই অভিযোগই করলেন কংগ্রেস নেতা নভজ্যোৎ সিং সিধু।

[আরও পড়ুন-ফোনের ওপারে চিকিৎসক, নির্দেশ মেনে ভোটকর্মীর প্রাণ বাঁচালেন জওয়ান]

প্রধানমন্ত্রী মোদিকে নিষ্কর্মা বলে কটাক্ষ করে তিনি আরও বলেন, “জাতীয়তাবাদের দোহাই দিয়ে ভোট না চেয়ে, প্রধানমন্ত্রীর উচিত দেশের স্বার্থ কীভাবে রক্ষা পাবে সেই বিষয় নিয়ে মন্তব্য করা।” প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ করে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অভিযোগ তোলা হয়েছিল, স্বজনপোষণকে প্রশ্রয় দিয়ে নিজের শিল্পপতি বন্ধুদের সুবিধা পাইয়ে দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। যদিও সরকারের পক্ষের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়। শনিবার ফের সেই অভিযোগই শোনা গেল সিধুর মুখে।

[আরও পড়ুন-রাহুল গান্ধীর মনোনয়নপত্রে অসঙ্গতি! কংগ্রেস সভাপতির নাগরিকত্ব নিয়েই উঠছে প্রশ্ন]

এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, “মোদি হলেন আম্বানি ও আদানির বিজনেস ডেভলেপমেন্ট ম্যানেজার। তাই সরকারি সংস্থাগুলোকে বঞ্চিত করে তাঁদের সুবিধা পাইয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আদানি ও আম্বানিকে তাঁর সঙ্গে বিদেশ সফরে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ১৮টি বড় প্রকল্প সরকারি সংস্থাগুলোকে না দিয়ে তাঁদের দিয়েছেন। একইভাবে সরকারি সংস্থা এসবিআই এবং এমটিএনএল লোকসানে চললেও পেটিএম বা রিলায়েন্স জিও-এর মতো বেসরকারি কোম্পানিগুলির পৃষ্ঠপোষকতা করছেন তিনি। বিএসএনএল যখন ৮,০০০ কোটি টাকা লোকসান করছে, তখন তিনি জিও-কে সুবিধা পাইয়ে দিচ্ছেন। স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া যখন সমস্যায় জর্জরিত, তখন তাঁকে দেখা যাচ্ছে পেটিএম প্রচারে।”

[আরও পড়ুন-শহিদ হেমন্ত কারকারেকে নিয়ে মন্তব্য, বিজেপি প্রার্থী সাধ্বী প্রজ্ঞাকে নোটিস কমিশনের]

চৌকিদার‘ মোদি দেশের এক শতাংশ বড়লোকের জন্য ৯৯ শতাংশ নাগরিককে অবহেলা করছেন বলেও অভিযোগ করেন সিধু। বলেন,”প্রধানমন্ত্রী বলেন তিনি দেশের চৌকিদার। কিন্তু, বাস্তবে তিনি দেশের শীর্ষে থাকা এক শতাংশ ধনী মানুষের চৌকিদারি করছেন। তিনি কখনই বিদেশ সফরের সময় সরকারি সংস্থাগুলোর চেয়ারম্যানদের সঙ্গে নিয়ে যান না। তাহলে কি সরকারি সংস্থাগুলো ভাল নয়?”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং