১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ২৬ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পাকিস্তানের হয়ে চরবৃত্তির অভিযোগ, পাঞ্জাব থেকে গ্রেপ্তার রেলের কর্মচারী

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: July 22, 2019 4:53 pm|    Updated: July 22, 2019 4:53 pm

Railway employee working for Pakistan's ISI arrested in Punjab

ছবি: প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানের হয়ে চরবৃত্তির অভিযোগে ধরা পড়ল এক রেলওয়ে কর্মচারী। ধৃতের নাম রামকেশ মীনা। গোয়েন্দাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অমৃতসর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে পাঞ্জাবের অজনালা থানার পুলিশ। ধৃত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ঘারিন্দা থানায় মামলা দায়ের করার পাশাপাশি তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন- উত্তরপ্রদেশে বাজ পড়ে মৃত ৩২, আর্থিক সাহায্য ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর]

স্থানীয় পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে,  রাজস্থানের বাসিন্দা রামকেশ পাঞ্জাবের আটারি রেলওয়ে স্টেশনে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী। কিন্তু, সে যে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-এর হয়ে চরবৃত্তি করত তা ঘুণাক্ষরেও কেউ টের পায়নি। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলি সূত্রে খবর আসে রামকেশ আইএসআই-এর হয়ে চরের কাজ করছে। এরপর থেকেই তার উপর নজর রাখা হচ্ছিল। রবিবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধৃতের কাছ থেকে একটি মোবাইল উদ্ধার হয়েছে। তাতে আটারি রেলওয়ে স্টেশন, সমঝোতা এক্সপ্রেস, স্থানীয় বিএসএফ আধিকারিক ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলির মিটিংয়ের ছবি এবং ভিডিও রয়েছে। জেরায় জানা গিয়েছে, ওই ছবি ও ভিডিওগুলি পাকিস্তানে থাকা আইএসআই এজেন্টের কাছ পাঠাত রামকেশ। এর জন্য তাকে প্রতিমাসে মোটা টাকা দিত পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা।

পুলিশ সুপার বিক্রমজিৎ সিং দুগ্গল জানান, ধৃতের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া মোবাইলে কিছু ছবি ও ভিডিও আছে। তার মধ্যে সীমান্তে মোতায়েন থাকা বিএসএফ জওয়ানদের পাশাপাশি সেখানকার নিরাপত্তা ব্যবস্থার ছবিও আছে। রয়েছে কিছু সীমান্ত সংলগ্ন বিএসএফ আউটপোস্টের ছবি। সাইবার বিশেষজ্ঞরা ওই মোবাইল ফোনটি পরীক্ষা করে আরও তথ্য জানার চেষ্টা করছেন।

[আরও পড়ুন- ১৩০ কোটি ভারতীয়র স্বপ্ন নিয়ে আজ চাঁদের উদ্দেশে পাড়ি চন্দ্রযান ২-এর]

এর আগে গত ৩০ মে পাঞ্জাব পুলিশের গোয়েন্দা শাখা অমৃতসর থেকে দুই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতদের নাম জগদেব সিং ও রবিন্দরপাল সিং। জেরা করে জানা যায়, তারা আইএসআই-এর মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন বব্বর খালসা ইন্টারন্যাশনাল(বিকেআই) মডিউলের সক্রিয় সদস্য। পাঞ্জাবে লুকিয়ে থাকা আইএসআই-এর স্লিপার সেলদের টাকা ও অস্ত্র সরবরাহ করাই ছিল তাদের মূল কাজ। সূত্রের খবর, এই দু’জনকে জেরা করেই রামকেশ মীনার নাম জানতে পারেন গোয়েন্দারা। তারপর থেকেই আটারি স্টেশনের ওই কর্মচারীর দিকে নজর রাখা হচ্ছিল।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে