১৭ চৈত্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ৩১ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের ডাক ২ মধ্যস্থতাকারীর, আন্দোলনে অনড় শাহিনবাগ

Published by: Sayani Sen |    Posted: February 19, 2020 7:56 pm|    Updated: February 19, 2020 8:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আসুন সকলে সমস্যার সমাধান করি। আলোচনাই একমাত্র পথ। নইলে সমস্যা সমাধানের কোনও উপায় নেই। দিল্লির শাহিনবাগের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (CAA) বিরোধীদের একথাই বললেন সুপ্রিম কোর্টের নিয়োজিত দুই মধ্যস্থতাকারী। বুধবার সাধনা রামাচন্দ্রন এবং সঞ্জয় হেগড়ে দুই বর্ষীয়ান আইনজীবী মধ্যস্থতাকারী হিসাবে আন্দোলনকারীদের কাছে যান। আলোচনার ডাক দেন তাঁরা।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় প্রায় দু’মাসেরও বেশি সময় ধরে শাহিনবাগে ধরনায় বসেছেন মহিলারা। সঙ্গে রয়েছে তাঁদের সন্তানরাও। খোলা আকাশের নিচেই দিনরাত ধরে চলছে আন্দোলন। তবে শাহিনবাগের জন্য ট্রাফিক সমস্যা নিয়ে একটি মামলা দায়ের করেন আইনজীবী আমিত সাহানি। ওই আইনজীবী দ্রুত শাহিনবাগ এলাকার ট্রাফিক সমস্যা দূর করার দাবিতে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন। তাঁর করা মামলার শুনানিতে সর্বোচ্চ আদালত শাহিনবাগের বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশ্যে বলে, “আপনাদের বিক্ষোভ করার অধিকার আছে। কিন্তু, রাস্তা বন্ধ করবেন না। এতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। আপনাদের থেকে অন্যরাও শেখে। আজ আপনারা বিক্ষোভ করছেন, আগামীতে অন্যরাও করবে।”

[আরও পড়ুন: আগ্রায় আসবেন সস্ত্রীক ট্রাম্প, যমুনার দুর্গন্ধ ঢাকতে নদীতে ছাড়া হল ৫০০ কিউসেক জল]

ওই মামলার প্রেক্ষিতে দেশের শীর্ষ আদালত আগেই জানিয়ে দেয়, কেউ বিক্ষোভ দেখালে তাতে কোনও আপত্তি নেই। তবে তা রাস্তা বন্ধ করে বা ট্রাফিক জ্যাম করে নয়। সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে শাহিনবাগের বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলার জন্য দু’জন মধ্যস্থতাকারীও নিয়োগ করে সর্বোচ্চ আদালত। সুপ্রিম কোর্টের দুই বর্ষীয়ান আইনজীবী সঞ্জয় হেগড়ে এবং সাধনা রামচন্দ্রনকে দায়িত্ব দেওয়া হয় বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে আলোচনা করে ট্রাফিক সমস্যার সমাধান করার। সেই অনুযায়ী বুধবার সাধনা রামাচন্দ্রন এবং সঞ্জয় হেগড়ে নামে আন্দোলনকারীদের কাছে যান। আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের কথা আন্দোলনকারীদের বলেন তাঁরা। তবে তা মানতে নারাজ শাহিনবাগের আন্দোলনকারীরা। এই মামলার পরবর্তী শুনানি আগামী ২৪ ফেব্রুয়ারি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement