BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রতিবন্ধী যুবককে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মার, কাঠগড়ায় উত্তরপ্রদেশের পুলিশ

Published by: Paramita Paul |    Posted: May 3, 2020 2:23 pm|    Updated: May 3, 2020 2:23 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাস্তায় পড়ে এক বিশেষভাবে সক্ষম যুবক, আর তাঁকে বেধড়ক মারছে পুলিশ। কখনও পায়ের বুট দিয়ে আবার কখনও হাতের লাঠি দিয়ে মারধর চলছে। আর্তনাদ করে, ক্ষমা চেয়েও রেহাই মিলছে না। এমনই এক হৃদয়বিদারক ভিডিও সোস্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। আর এই ঘটনা আরও একবার মুখ পুড়েছে উত্তরপ্রদেশের যোগী প্রশাসনের। অন্যদিকে, আরও এক বিজেপিশাসিত রাজ্য মধ্যপ্রদেশেরও অনাচারের ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। ইন্দোরের এক গ্রামে মুসলিম সবজি বিক্রেতাদের প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। যা নিয়ে তীব্র বির্তক দানা বেঁধেছে।

লকডাউনের শুরুর দিন থেকে যোগীর রাজ্যের পুলিশের বিরুদ্ধে বর্বরতার অভিযোগ উঠেছে। কখনও পথচারীদের রাস্তায় দাঁড় করিয়ে কান উঠবোস করিয়েছে, তো কখনও বিস্কুট কিনতে যাওয়া কিশোরকে লাঠিপেটা করেছে। এই এটাওয়াতেই পুলিশের লাঠির ঘায়ে প্রাণ হারিয়েছিল এক কিশোর। এবার সেই জেলায় এক বিশেষভাবে সক্ষভ যুবকের উপর অত্যাচার চালাল উত্তরপ্রদেশে পুলিশ।

[আরও পড়ুন : ‘ফ্লাই পাস্ট’ থেকে পুষ্পবৃষ্টি, করোনা যোদ্ধাদের সেলাম ভারতীয় সেনার]

সমাজবাদি পার্টির টুইটার হ্যান্ডেল থেকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছে, এক প্রতিবন্ধী যুবক রাস্তায় পড়ে আছেন। জুতো দিয়ে তাঁর মুখে মারছেন এক পুলিশ কর্মী। পরে আবার বুকে পা তুলে দেন তিনি। এমনকী হাতের লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হল তাঁকে। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই নড়েচড়ে বসেছে যোগীরাজ্যের পুলিশ। তাঁদের তরফে জানানো হয়, সুনীল যাদব নামে ওই যুবক ড্রাগের নেশা করে। অভিযোগ, ওই যুবক ছুরি হাতে গ্রামবাসীদের ভয় দেখাচ্ছিল। এমনকী আগুন লাগিয়ে দেওয়ার হুমকিও দিচ্ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে আসে। তাকে হেফাজতের নেওয়ার জন্য ‘সামান্য গায়ের জোর’ প্রয়োগ করা হয়েছিল বলে সাফাই দিয়েছে এটাওয়া পুলিশ।

[আরও পড়ুন : ‘তবলিঘি জামাতের সদস্যরাই সংক্রমণের জন্য দায়ী’, তোপ দাগলেন যোগী আদিত্যনাথ]

অন্যদিকে, মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরের পেমালপুর গ্রামের বাইরে একটি নোটিশ ঝুলতে দেখা যায়। সেখানে লেখা, এই গ্রামে মুসলিম ব্যবসায়ীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। পোস্টারের নিচে গ্রামবাসীদের নাম লেখা। পোস্টারটির ছবি টুইটারে ফাঁস করে দেন কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিং। তিনি লেখেন, “এটা প্রধানমন্ত্রী আবেদন বিরোধী নয়? এটা কি আইনবিরোধী নয়? আমি মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান ও পুলিশের কাছে জানতে চাই কেন এরকম বিভেদমূলক পোস্টার দেওয়া হল?” এরপরই নড়েচড়ে বসে মধ্যপ্রদেশ পুলিশ। খুলে ফেলা হয় পোস্টারটি। অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement