BREAKING NEWS

২৩ আষাঢ়  ১৪২৭  বুধবার ৮ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

উত্তরপ্রদেশের রাস্তায় ফেলে মার পরিযায়ী শ্রমিকদের! বরখাস্ত অভিযুক্ত কনস্টেবল

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 19, 2020 4:28 pm|    Updated: May 19, 2020 4:28 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রক্ষকেরই ভক্ষক হয়ে ওঠার অমানবিক ছবি ধরা পড়ল উত্তরপ্রদেশে (UttarPradesh)। রাস্তায় ফেলে পরিযায়ী শ্রমিকদের মারধরের চিত্রও ভাইরাল হল সোশ্যাল মিডিয়ায়। এখানেই শেষ নয়, নিষ্ঠুরতার সীমা ছাড়িয়ে পরিযায়ীদের রাস্তায় গড়াগড়ি দিতেও বাধ্য করে পুলিশ।

Up-cops-beaten-2

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা যায় লাঠি হাতে পরিযায়ী শ্রমিকদের দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন উত্তরপ্রদেশের হরিপুেরের এক কনস্টেবল ও একজন হোম গার্ড। অপরাধ? পুলিশের কথার অবাধ্য হয়ে হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন তাঁরা। তাই শাস্তিস্বরূপ তাঁদের লাঠি দিয়ে মারতে দ্বিধা করেননি পুলিশ কর্মীরা। মারধরের পাশাপাশি রেল স্টেশনের দিকে যাওয়া রাস্তা ধরে তাঁদের গড়াগড়িয় দিতে বাধ্য করা হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই তা দেখে দুঃখপ্রকাশ করেছেন অনেকে। রক্ষকই যদি ভক্ষক হয়ে ওঠেন তাহলে মানুষ যাবে কোথায়? অভিযুক্ত পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে কড়া শাস্তির দাবিও জানিয়েছেন নেটিজেনরা। উত্তরপ্রদেশের পুলিশের মতে, “দুই পরিযায়ী শ্রমিক হেঁটে বাড়ি ফিরছিলেন। তাদেঁর দেখতে পেয়ে উক্ত কনস্টেবল প্রথমে জিজ্ঞাসাবাদ করেন, পরে তাঁদের মারধর করতে শুরু করেন। এই দুই অভিযুক্ত পুলিশ আধিকারিককে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে উপপুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।” জানা যায়, অভিযুক্ত কনস্টেবল অশোক মিনা ও হোম গার্ড শরাফত আলির বিরুদ্ধে পুলিশ লাইন ও হোম গার্ড বিভাগে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ পেয়ে তৎখনাত কনস্টেবলকে বরখাস্ত করা হয়। আহত পরিযায়ী শ্রমিকদের হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে তাদের চিকিৎসা করে খাবারের ব্যবস্থা করা হয় নিকটবর্তী থানা থেকে।

[আরও পড়ুন:লকডাউন বহাল করতে গিয়ে রোষের শিকার, হরিয়ানা মৃত এক পুলিশ আধিকারিক]

সমাজের সবথেকে নীপিড়িত ও শোষিতদের মধ্যে এখন শিরোণামে উঠে আসছে পরিযায়ী শ্রমিকদের জীবন সংগ্রামের গল্প। কর্মহীন হয়ে ভিন রাজ্যে আটকে কেউ কষ্টে দিন গুনছেন। কেউ বা বাড়ি ফিরতে গিয়ে পুলিশের রোষাণলে পড়ছেন। কারোর কাছে তো আবার বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য হাত পেতে ঘুষ চাইতেও বিবেকে বাধছে না পুলিশের। দিনের পর দিন করুণ থেকে করুণতর হয়ে উঠছে এই চিত্র। তবে এই সব ছবি ধরা থাকছে সময়ের খাতায়।

[আরও পড়ুন:শ্রমিক ট্রেনে নেওয়া হচ্ছে ১৫০ টাকা ‘মেডিক্যাল চার্জ’, অভিযোগ পরিযায়ীদের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement