BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ১ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ফের হাওড়া স্টেশনে শৌচালয় ব্যবহারে টাকা নেওয়ার অভিযোগ, এবার ক্ষুব্ধ চিত্রশিল্পী

Published by: Suparna Majumder |    Posted: November 18, 2022 9:06 pm|    Updated: November 18, 2022 9:06 pm

Artist alleges 'extortion' for using toilet at Howrah Station | Sangbad Pratidin

সুব্রত বিশ্বাস: বিশ্ব টয়লেট দিবসের আগে ফের কাঠগড়ায় হাওড়া স্টেশন। আবারও স্টেশনের সুলভ শৌচালয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ উঠল। এবার অভিযোগকারী এক চিত্রশিল্পী। শিল্পীর দাবি, সুলভ শৌচাগারে প্রস্রাব করার জন্য তাঁর কাছ থেকে দু’টাকা নেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে ডেপুটি স্টেশন মাস্টারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

Toilet

জানা গিয়েছে, শিল্পীর নাম ত্রিদিব সিং। তিনি শান্তিনিকেতনের প্রাক্তনী। শুক্রবার বিকেলে চিকিৎসা করিয়ে পরিবার নিয়ে ঝাড়গ্রামে ফিরছিলেন ত্রিদিববাবু। সেই সময় হাওড়া স্টেশনের ১ নম্বর প্ল্যাটফর্মের সুলভ শৌচালয়ে তিনি প্রস্রাব করতে যান। ত্রিদিববাবুর অভিযোগ, তিনি জানতেন না যে হাওড়া স্টেশনের সুলভ শৌচালয়ে যাওয়ার জন্য কোনও টাকা দিতে হয় না। তাই দু’টাকা দিয়েই প্রস্রাব করতে যান। পরে যখন তিনি জানতে পারেন ডেপুটি স্টেশন মাস্টারের কাছে গিয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

[আরও পড়ুন: দিল্লির ব্যবসায়ীর নির্যাতনের শিকার, কলকাতার হাসপাতালে পুত্র সন্তানের জন্ম দিল বারো বছরের কিশোরী!]

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে এমনই অভিযোগে উত্তাল হয়েছিল হাওড়া স্টেশন চত্বর। অভিযোগ ছিল, হাওড়া স্টেশনের ওল্ড ও নিউ কমপ্লেক্সের শৌচাগার ব্যবহার করলে টাকা দিতে হচ্ছিল। নিয়ম বলছে, প্রস্রাবের জন্য শৌচাগার ব্যবহার করলে টাকা দিতে হয় না। কিন্তু এক্ষেত্রে ৩ টাকা করে নেওয়া হচ্ছিল। অথচ শৌচাগারের সামনেই বড়বড় হরফে লেখা রয়েছে, ‘প্রসাবের জন্য টাকা লাগবে না।’ তারপরেও কেন টাকা নেওয়া হচ্ছে, এ নিয়ে তীব্র ক্ষোভ তৈরি হয়েছিল নিত্যযাত্রীদের মধ্যে। অভিযোগ পেতেই নড়চড়ে বসে পূর্ব রেল।

Eastern Rail rejects contract with agency who takes care pay and use toilet | Sangbad Pratidin

রেল সূত্রে খবর, শৌচাগার দেখভালের বরাত পাওয়া ঠিকাদার সংস্থাকে ডেকে পাঠিয়েছিল রেল কর্তৃপক্ষ। জানতে চাওয়া হয়, কেন টাকা নেওয়া হচ্ছে? সন্তোষজনক জবাব না মেলায় সংস্থাটির চুক্তি বাতিল করা হয়। সূত্রের খবর, দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ ছিল শৌচাগারগুলি। খোলার পর চুক্তি করা হয়েছিল ঠিকাদার সংস্থার সঙ্গে। তারপর থেকেই টাকা নেওয়া হচ্ছিল বলে অভিযোগ। এরপর প্রায় ২৩ মাস কেটে গিয়েছে। এতদিন কেন বিষয়টি রেলের নজরে আসেনি, তা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে। জানা যায়, ২০২৭ সাল পর্যন্ত ও বেসরকারি সংস্থার চুক্তি ছিল। তার আগেই চুক্তি বাতিল হয়। কিন্তু এরপরও এমন ঘটনা ঘটে চলেছে। অভিযোগকারী শিল্পী ত্রিদিব সিং বলেন, “বিষয়টি অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। আর তা রেলের দেখা উচিত।”

[আরও পড়ুন: নিয়োগ দুর্নীতি: সিটের মাথায় অশ্বিন শেনভি, ‘সারদা-নারদা না হয়ে যায়’, মন্তব্য বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে