BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘রাজ্যের চাপে পিছু হটল CESC’, টুইটে উপভোক্তাদের অভিনন্দন জানালেন বিদ্যুৎমন্ত্রী

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: July 20, 2020 11:39 am|    Updated: July 20, 2020 11:39 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ক্রমাগত চাপে কিছুটা পিছু হটেছে CESC। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, গত দু’মাসের বকেয়া বিদ্যুতের ইউনিটের টাকা আপাতত মেটাতে হবে না উপভোক্তাদের। বদলে শুধুমাত্র জুন মাসে ব্যবহার করা বিদ্যুতের বিল মেটালেই চলবে। CESC’র এই ঘোষণার পরই বিদ্যুৎমন্ত্রী টুইটে বললেন, ক্ষোভ-আন্দোলন ও রাজ্যের কড়া অবস্থানের কারণেই নতিস্বীকার করতে বাধ্য হয়েছে ওই বিদ্যুৎ সংস্থা।

ঘটনার সূত্রপাত কয়েকদিন আগে। জুলাই মাসে CESC’র পাঠানো বিল দেখে মাথায় হাত পড়েছিল মধ্যবিত্তদের। কারও বিল এসেছিল ১০ হাজার তো কারও ২০ হাজার। কিন্তু লকডাউনে এই বিদ্যুতের বিলের বহর দেখে মাথায় হাত পড়েছিল কলকাতা ও তৎ সংলগ্ন এলাকার আমজনতার। এই বিভ্রাট থেকে রেহাই পাননি খোদ বিদ্যুৎমন্ত্রীও। এ নিয়ে তিনি কথা বলেছিলেন CESC’র আধিকারিকদের সঙ্গে। সেই সময় ওই সংস্থার তরফে জানানো হয়েছিল, করোনা সংক্রমণের জেরে মার্চ থেকে লকডাউন (Lockdown) জারি করা হয়। তার ফলে বেশ কয়েকমাস বন্ধ ছিল মিটার রিডিং নেওয়া। এপ্রিল ও মে মাসে বাৎসরিক গড় বিদ্যুৎ ব্যবহারের নিরিখে বিল পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এত বিল কীভাবে মেটাবেন তা ভেবেই মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছিল সাধারণ মানুষের। ফলে শহরের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষ শামিল হয়েছিল বিক্ষোভে।

[আরও পড়ুন: ‘অভিযুক্তের ফাঁসি চাই, নাহলে শেষ দেখে ছাড়ব’, চোপড়া ধর্ষণকাণ্ডে হুঁশিয়ারি অগ্নিমিত্রার]

লাগাতার বিক্ষোভে রবিবার পিছু হটতে বাধ্য হয় CESC। জানানো হয়, গত দু’মাসের বকেয়া বিদ্যুতের ইউনিটের টাকা আপাতত মেটাতে হবে না তাঁদের। এরপরই শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় টুইটে বলেন, “আমি CESC’র উপর চাপ সৃষ্টি করি। ওদের কোনও যুক্তিতেই আমি খুশি হইনি। মিটিংও ডেকেছিলাম। রাজ্য ও রাজ্যবাসীর চাপের কাছে নতিস্বীকার করল CESC। যা নিশ্চিতভাবে এটা মানুষের পক্ষে আনন্দায়ক খবর।”

 

[আরও পড়ুন: শিয়ালদহ স্টেশনের কাছে বেলাইন হাসনাবাদ ‘স্টাফ স্পেশ্যাল’, প্রাণে বাঁচলেন রেলকর্মীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement