১৩ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বুধবার ২৭ মে ২০২০ 

Advertisement

৭৬ দিন পর চিনের ইউহানে উঠল লকডাউন, স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: April 8, 2020 9:58 am|    Updated: April 8, 2020 9:58 am

An Images

সংবাদ প্রতিডিন ডিজিটাল ডেস্ক: টানা এগারো সপ্তাহের লড়াইয়ের অবসান। করোনা ভাইরাসের আঁতুরঘর চিনের ইউহান প্রদেশ থেকে উঠে গেল লকডাউনের (Lockdown) ‘অভিশাপ’। নভেল করোনা ভাইরাসের (COVID-19) কবল থেকে মুক্ত হয়ে এই প্রথম ট্রেন চলল এই প্রদেশে। লকডাউন কাটিয়ে জীবনের ছন্দে ফিরে ইউহানের জনসাধরণ অনুমতি পেল ট্রেনে ভ্রমণ করার।

বিশ্বের ত্রাস নভেল করোনা ভাইরাসের উৎসস্থল চিনের ইউহান (Wuhan) প্রদেশ। এই স্থান থেকে মারণ রোগের থাবা গ্রাস করেছে বিশ্বের প্রতিটি দেশকে, মৃত্যুমিছিল ঘুম কেড়েছে চিকিৎসকদের। কিন্ত সেই ইউহান প্রদেশ দেখলে আজ কে বলবে যে এতদিন সেখানে ছিল শ্মশানের নিস্তব্ধতা। তবে মারণ ভাইরাসের আঁতুরঘর ইউহান হলেও এই প্রদেশ পৃথিবীকে চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে কীভাবে নিয়ম মেনে জীবনের জয়গান গাওয়া যেতে পারে। টানা ৭৬ দিনের লকডাউন বজায় রেখে ইউহানের নাগরিকরা ‘করোনা যুদ্ধ’-এ বিজয়ী। নিয়মের বেড়াজালকে শিথিল করে ইউহানের হুবেইতে শুরু হয়েছে ব্যবসা-বাণিজ্য। আজ থেকে অনুমতি পত্র ছাড়া হুবেইয়ের প্রায় ১১ লক্ষ নাগরিককে রাস্তায় বের হওয়ার ও অনুমতি দেওয়া হয়েছে। সরকারের তরফ থেকে জানান হয়েছে, এই হুবেই প্রদেশের কোনও নাগরিকই আর সংক্রমিত নন। তাঁরা সকলেই সুস্থ। চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে লকডাউনের কড়া নিয়মাবলি মেনে চলেছেন হুবেই প্রদেশের নাগরিকরা। করোনা যুদ্ধ জয়ের পর ইয়াং নদীর তীরে করোনা মোকাবিলা করা চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীদের সম্মানার্থে, তাঁদের ছবি রেখে একটি বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করে। চিনের রাষ্ট্রপতি শি জিনপিং করোনা মোকাবিলা করে জয়ী এই ইউহানকে ‘বীরত্বের শহর’ বলে চিহ্নিত করেছেন।

[আরও পড়ুন:২৪ ঘণ্টায় মৃত প্রায় ২ হাজার, করোনার কামড়ে রক্তাক্ত মার্কিন মুলুক]

হুবেই-এর এই প্রদর্শনী দেখার সময় এক নাগরিক আবেগঘন হয়ে জানান, “প্রায় ৭০ দিন আমি বাড়ি থেকে বের হইনি।” জানা যায় তাঁর বাড়ির বিল্ডিং করোনা সংমিতকে খুঁজে পাওয়ায় লকডাউনেরও আগের থেকে সেই বিল্ডিং শাট ডাউন করে দেওয়া হয়। জীবনধারণের প্রয়োজনে খাবার কিনতে তিনি বাইরে যেতে পারেননি। তাঁর প্রতিবেশীরা তাঁকে খাবার কিনে দিয়েছেন। তাই পৃথিবীকে করোনা মুক্ত করতে লকডাউনের গুরুত্বতা বোঝাল ইউহান।

[আরও পড়ুন:করোনার সঙ্গে যুদ্ধে হার, ব্রিটেনে মারণ ভাইরাসের বলি ভারতীয় বংশোদ্ভূত চিকিৎসক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement