২৮ ভাদ্র  ১৪২৬  রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে আগেই নাক কাটা গিয়েছে। আন্তর্জাতিক ফোরামগুলিতেও কাশ্মীর নিয়ে গলাবাজি করে খুব একটা লাভ হয়নি। কিন্তু, তাতেও শিক্ষা হয়নি পাকিস্তানের। এবার, কাশ্মীর ইস্যুতে আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের দ্বারস্থ হতে চলেছে ইসলামাবাদ।

[আরও পড়ুন: ‘ভয়ানক সমস্যা চলছে’, কাশ্মীর ইস্যুতে ফের মধ্যস্থতার প্রস্তাব ট্রাম্পের]

আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতেও পাক ইতিহাস খুব একটা সুখের নয়। সম্প্রতি কুলভূষণ যাদব মামলায় মুখ পুড়েছে পাকিস্তানের। ভারতের পক্ষেই গিয়েছে আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালত (আইসিজে)-র রায়। সেই হারের ধাক্কা সামলে ওঠার আগেই ফের আন্তর্জাতিক আদালতেই গেল পাকিস্তান। কাশ্মীরে ভারত সরকার সংবিধানের ৩৭০ ধারা বিলোপ করেছে এবং জম্মু-কাশ্মীরকে দু’ভাগে ভাগ করে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল তৈরি করেছে। ভারতের এই পদক্ষপকে একতরফা আখ্যা দিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে আইসিজে-তে আবেদন জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইমরান খান সরকার।

[আরও পড়ুন: বিদ্ধেষ ছড়ানোর অভিযোগে ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ, জাকিরের ভাষণ নিষিদ্ধ করল মালয়েশিয়া]

মঙ্গলবার পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সব আইনি দিক বিচার করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপের পর গত ৬ অগস্ট পাকিস্তানের সংসদের দুই সভার যৌথ অধিবেশন ডেকেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সে দিনই তিনি জানিয়েছিলেন, এ ব্যাপারে সব রকম আন্তর্জাতিক মঞ্চে যাবে ইসলামাবাদ। এ দিন পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, যৌথ অধিবেশনে দেওয়া সেই প্রতিশ্রুতি মতোই এগোচ্ছে পাক প্রশাসন।

এদিকে, পাকিস্তানের যে কোনও পদক্ষেপের জন্য ভারত প্রস্তুত। রাষ্ট্রসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন জানিয়ে দিয়েছেন, পাকিস্তান যদি ভারতের বিরুদ্ধে আলাদা আলাদা ফোরামে আবেদন করে, তাহলে ভারতও সবরকম ফোরামেই পাকিস্তানের মোকাবিলা করতে প্রস্তুত। তিনি বলেন, “সব দেশেরই অধিকার আছে, সবরকম চেষ্টা করার। ওরা যদি আমাদের আলাদা আলাদা ফোরামে কোণঠাসা করার চেষ্টা করে, আমরা সেই ফোরামেই ওদের জবাব দেব। এটা ওদের পছন্দের জায়গা, আগেও চেষ্টা করেছে। কিন্তু, সফল হয়নি।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং