‘হিন্দু সন্ত্রাস’ তত্ত্ব খারিজ, মক্কা মসজিদ বিস্ফোরণে বেকসুর খালাস স্বামী অসীমানন্দ

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ধোপে টিকল না ‘হিন্দু সন্ত্রাস‘ তত্ত্ব। বেকসুর খালাস পেলেন ২০০৭-এর মক্কা মসজিদ বিস্ফোরণের অভিযুক্তরা। সোমবার, দীর্ঘদিন ধরে চলা মামলার শেষে এই রায় দেয় হায়দরাবাদের বিশেষ এনআইএ আদালত। এদিন মূল অভিযুক্ত স্বামী অসীমানন্দ-সহ পাঁচ অভিযুক্তকে নির্দোষ বলে রায় দেয় আদালত।

২০০৭-এর ১৮ মে ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে উঠে হায়দরাবাদের মক্কা মসজিদ চত্বর। ধামাকায় মৃত্যু হয় নমাজ পড়তে আসা ৯ ব্যক্তির। এগারো বছর আগের ওই ঘটনায় নাম জড়ায় উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের। উঠে আসে মালেগাঁও বিস্ফোরণে অভিযুক্ত কর্নেল প্রসাদ পুরোহিতের নামও। চাপের মুখে বিস্ফোরণের তদন্তভার দেওয়া হয় সিবিআইয়ের হাতে। তারপর ২০১১ সালে মামলাটির তদন্তে নামে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। প্রায় দশজন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করা হয়। তবে মাত্র পাঁচ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে মামলা চালানো হয়। ওই পাঁচজন- দেবেন্দ্র গুপ্তা, লোকেশ শর্মা, স্বামী অসীমানন্দ ওরফে নব কুমার সরকার, ভারত ভাই ও রাজেন্দ্র চৌধুরি। সকলেই আজ আদালতে নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছেন।

মামলা চলাকালীন প্রায় ২২৬ জনের বয়ান নেওয়া হয় আদালতে। খতিয়ে দেখা হয় ৪১১টি দলিল। হাইভোল্টেজ মামলাটি নিয়ে রাজনৈতিক দল বিশেষ করে কংগ্রেস ও বিজেপির মধ্যে চলে তীব্র চাপানউতোর। ওই বিস্ফোরণের পরই ‘হিন্দু সন্ত্রাসবাদ’ তত্ত্ব তুলে ধরেন ইউপিএ সরকারের তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুশীল কুমার শিন্ডে। বিস্ফোরণের নেপথ্যে আরএসএস ও বিজেপির একাংশ রয়েছে বলে অভিযোগ করেছিলেন তিনি। তবে এদিনের রায়ে কার্যত কংগ্রেস ও ইউপিএ-এর মুখ পুড়ল বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞদের একাংশ। আদালতের রায়ের পর কংগ্রেসের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রাক্তন সচিব আরভিএস মণি। তাঁর অভিযোগ, এনআইএ-কে কাজে লাগিয়ে দোষীদের আড়াল করেছে তৎকালীন ইউপিএ সরকার। এক্ষেত্রে মিথ্যে অভিযোগে ফাঁসানো হয়েছিল অভিযুক্তদের। সম মিলিয়ে এদিনের রায়ে কার্যত ব্যাকফুটে কংগ্রেস।

[নববর্ষ উদযাপনকে ঘিরে আইআরবি জওয়ানদের মধ্যে গন্ডগোল, ধুন্ধুমার শিলিগুড়িতে]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *