BREAKING NEWS

১১ কার্তিক  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

মুর্শিদাবাদের পর বীরভূমে জঙ্গি ডেরার হদিশ, অস্ত্র-সহ শান্তিনিকেতন এলাকায় ধৃত ৪ বাংলাদেশি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 28, 2020 12:53 pm|    Updated: September 28, 2020 1:01 pm

An Images

ভাস্কর মুখোপাধ্যায়, বোলপুর: সম্প্রতি NIA অভিযান চালিয়ে মুর্শিদাবাদ এবং কেরলের এর্নাকুলাম থেকে আল কায়দা যোগে মোট ১২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। দিল্লিতে তাদের লাগাতার জেরা চলছে। তারই মধ্যে আতঙ্ক আরও ছড়াল বীরভূমের (Birbhum) জঙ্গি ডেরার হদিশ মেলায়। শান্তিনিকেতন (Shantiniketan) থানা এলাকার তালতোড় গ্রামের এক বাড়ি থেকে অস্ত্র-সহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে মোট ৬ জনকে। তার মধ্যে চারজনই বাংলাদেশি। বীরভূম জেলা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেপ্তারিরর পর ফের বড়সড় জঙ্গিঘাঁটির সন্ধান পেতে চলেছে বলে মনে করা হচ্ছে। এদের আজ বোলপুর মহকুমা আদালতে পেশ করা হচ্ছে।

Terrorist
এই বাড়ি থেকেই গ্রেপ্তার ৪ বাংলাদেশি

মুর্শিদাবাদ থেকে আল কায়দা যোগে এতজন যুবকের গ্রেপ্তারির পরই আশেপাশের জেলাগুলিতে সতর্কবার্তা পৌঁছেছিল। বীরভূম, নদিয়ার পুলিশ আরও গুরুত্ব দিয়ে খতিয়ে দেখছিল এলাকার নিরাপত্তা। বিশেষত বীরভূমে আগেও খাগড়াগড় বিস্ফোরণের অন্যতম মূল চক্রীদের ডেরা থাকায় জেলা পুলিশ নতুন করে খোঁজখবর নিতে শুরু করে।

[আরও পড়ুন: হাই কোর্ট গঠিত কমিটির নির্দেশে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় শুরু পৌষমেলার মাঠ ঘেরার কাজ]

দিন তিনেক আগে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শান্তিনিকেতন থানা এলাকায় অভিযান চালায় জেলা পুলিশ। তালতোড় গ্রাম থেকে প্রান্তিক যাওয়ার পথে একটি সন্দেহজনক বাড়ি শনিবার রাতে ঘিরে ফেলে পুলিশের বিশাল বাহিনী। এরপর সেখান থেকে পুলিশের জালে ধরা পড়ে একে একে ৬ জন, যাদের মধ্যে ৪ জনই বাংলাদেশি। বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে আগ্নেয়াস্ত্র, নাইন এমএম পিস্তল, বোমা তৈরির মশলা।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকমাস আগে তালতোড়ের ওই গ্রামে দিলীপ ঘোষ নামে একজনের বাড়ি ভাড়া নিয়ে থাকছিল ৪ জন বাংলাদেশি। দিলীপ ঘোষ নিজে এলাকায় থাকেন না, বাইরে থাকেন। তাই তিনি বাড়িটি ভাড়া দিয়ছিলেন। তবে এরা কারা, কী কারণে শান্তিনিকেতন এলাকায় বাড়িভাড়া নিচ্ছে, তা কেউই জানতে পারেননি। এদের সঙ্গে সম্প্রতি স্থানীয় দুই যুবকের ঘনিষ্ঠতা তৈরি হয়। পুলিশ অভিযান চালানোর পর বুঝতে পারে, ২ যুবককে সঙ্গে নিয়ে অস্ত্র, বোমা তৈরির কাজ করছিল এই ৪ বাংলাদেশি। কিন্তু কী তাদের পরিকল্পনা ছিল, কত বড় নাশকতার ছক তৈরি হচ্ছিল এখানে বসে, সেসব এখনও কিছুই জানতে পারেননি পুলিশ কর্তারা।

[আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্যের জের, অনুপম হাজরার বিরুদ্ধে FIR তৃণমূল উদ্বাস্তু সেলের]

আজ আদালতে পেশ করে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে ৬ জনকে জেরা করতে চায় পুলিশ। এ বিষয়ে যথেষ্ট তৎপর বীরভূম জেলা পুলিশ। কারণ, সম্প্রতি মুর্শিদাবাদ এবং বছর সাতেক আগে খাগড়াগড়ের ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে এই জেলায় জঙ্গিঘাঁটিগুলো ফের সক্রিয় হওয়ার আগেই তা গুঁড়িয়ে দেওয়া লক্ষ্য পুলিশ প্রশাসনের।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement