৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বিতর্ক এড়াতে নির্বাচনে নতুন স্লোগান তৈরির কাজে সাবধানী বাম

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 22, 2019 10:24 am|    Updated: April 22, 2019 10:24 am

Youth and students wings of Left Front making new slogans

ক্ষীরোদ ভট্টাচার্য: শুরুতেই সাড়া ফেলে দিয়েছিল তাঁদের তৈরি স্লোগান। ভোটের ভরা বাজারে কর্মী, সমর্থকদের মধ্যে সেই স্লোগান ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে গেলেও, আলিমুদ্দিনের তরফে বাদ দেওয়া হয়েছে ‘আর না’ স্লোগানটি। শুধু ‘আর না’ নয়, বিতর্ক তৈরি হতে পারে এই আশঙ্কায় আরও বেশ কিছু স্লোগানকে এবার বাতিল করা হয়েছে ভোটের প্রচারে। তাই পরিচিত পুরনো স্লোগান বাদ দিয়ে প্রার্থীদের জন্য নতুন নতুন স্লোগান তৈরি করছে ছাত্র সংগঠন এসএফআই ও ডিওয়াইএফআই।

[ আরও পড়ুন: সিউড়িতে আক্রান্ত তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি, কাঠগড়ায় বিজেপি]

সিঙ্গুর থেকে রাজভবন – বামেদের একাধিক অভিযানের সময় এসএফআইয়ের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা কমিটির তৈরি ‘আর না’ স্লোগানটি রাজনৈতিক মহলে রীতিমত তোলপাড় ফেলে দিয়েছিল। এসএফআই নেতৃত্বের দাবি, হলদিয়া ও পুর্ব বর্ধমানের দুই সদস্য সুমিত জানা ও সন্দীপ চট্টোপাধ্যায় মিলে ‘আর না’ স্লোগান লিখেছিলেন। আর বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্যার প্রথম বর্ষের ছাত্রী রিয়া মাইতির গলায় সেই স্লোগান সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু প্রবল প্রতিপক্ষ দুই রাজনৈতিক দলও প্রায় একই ভাষায় এসব স্লোগানকে হাতিয়ার করেছে৷ সেই কারণেই ‘আর না’ স্লোগান এবারের মতো বাদ দিয়েছে সিপিএম।

দলের রাজ্য কমিটির এক সদস্যের কথায়,“বিতর্ক এড়াতেই স্লোগানটি ব্যবহার করা হচ্ছে না। এই সিদ্ধান্ত সব জেলা কমিটিকে মৌখিকভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।” যদিও তাঁর দাবি, ওই স্লোগানটি সবচেয়ে বেশি পরিচিতি পেয়েছিল। স্লোগান তুলে জনপ্রিয় হয়ে যাওয়া রিয়া মাইতি বলেছেন,“কোনও সংশয় নেই যে স্লোগানটি দারুণ হিট হয়েছিল। কিন্তু নীতিগত কারণেই আমরা এই স্লোগান আর ব্যবহার করব না।” তিনি আরও জানান,এখন নতুন স্লোগান তৈরি হচ্ছে। সেই স্লোগানই রাজ্যজুড়ে প্রচারিত হচ্ছে। পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ,“একটি স্লোগান হিট হলেই তা বিরোধী দলগুলি ব্যবহার করতে শুরু করছে৷ তাই নতুন স্লোগান তৈরি করতে হয়।”

[ আরও পড়ুন: রক্তদান থেকে চারাগাছ বিতরণ, গতানুগতিকতা ভেঙে সন্তানের জন্মদিন উদযাপন দম্পতির]

গণতন্ত্রের উৎসবে নতুন স্লোগান তৈরির ক্ষেত্রে যথেষ্ট সতর্ক থাকছে এসএফআই ও ডিওয়াইএফআই নেতৃত্ব। এসএফআইয়ের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা কমিটির সম্পাদক প্রসেনজিৎ মুদির কথায়,“রাজনৈতিক স্লোগান তৈরির সময় যথেষ্ট সতর্ক থাকতে হচ্ছে। কোনও ব্যক্তির সম্পর্কে যাতে কোনও বিরূপ মন্তব্য না থাকে সেদিকেও বিশেষভাবে নজর দেওয়া হচ্ছে।” ১২ মে ভোট মেদিনীপুরে৷ ভোটের দিকে তাকিয়ে কৃষক-মজুরদের নিয়ে একটি স্লোগান ইতিমধ্যেই সাড়া ফেলেছে। নিছক ‘আমি’ বা ‘তুমি’ ব্যবহার করেই প্রতিপক্ষ ও নিজেদের অবস্থান বোঝানো হচ্ছে। বামেদের স্লোগানে যেমন এসেছে ‘রাফালে’ বা ‘ব্যাপম’ প্রসঙ্গ, তেমনই আলু বা ধানের দাম নিয়ে স্লোগান তৈরি হয়েছে। সেই স্লোগানে স্বভাবতই গলা মেলাচ্ছেন বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এসএফআই নেত্রী রিয়া মাইতি ও তাঁর সতীর্থরা।

[ আরও পড়ুন: গাড়ি থেকে নেমে নাচ রূপার, মালদহে বিজেপি প্রার্থীর প্রচারে চমক]

রবিবার সন্ধ্যায় রিয়া তখন স্লোগানের রিহার্সালে ব্যস্ত। জেলা ছাড়িয়ে দুই বর্ধমানে ঠাসা কর্মসূচি তাঁর। বিভিন্ন জেলা থেকে বাম প্রার্থীদের সমর্থনে মিছিল ও স্লোগানের জন্য দাবি আসছে জেলা সিপিএম নেতৃত্বের কাছে। তবে জেলার বাম নেতারা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ‘স্লোগান কন্যা’ রিয়া মাইতিকে এখনই ছাড়া যাবে না। ভোটের প্রচারে সম্প্রতি ফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু জেলায় গিয়েছিলেন। স্থানীয় সিপিএম নেতৃত্বের দাবি, বিমান বসু উৎসাহ দিয়েছেন রিয়া ও তাঁর বন্ধুদের। তাই ভোট পর্যন্ত স্লোগানেই মজে সিপিএমের ছাত্র ও যুব ব্রিগেড।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে