BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রক্তস্নাত শ্রীলঙ্কার পাশে বিনোদুনিয়া, টুইটারে শোকপ্রকাশ সেলেবদের

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: April 21, 2019 8:00 pm|    Updated: April 22, 2019 12:16 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রবিবার অর্থাৎ ২১ এপ্রিল দিনটা কলম্বোর ইতিহাসে সত্যিই এক কলঙ্কিত দিন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে থাকবে৷ কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে মোট আটটি বিস্ফোরণ৷ এদিন ইস্টারের প্রার্থনা চলাকালীন ধারাবাহিক বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছে শ্রীলঙ্কা৷ সকালে ধারাবাহিক বিস্ফোরণের পরও দুপুরে ফের জোড়া বিস্ফোরণ ঘটেছে শহরে৷ এপর্যন্ত খবর প্রাণহানি হয়েছে কমপক্ষে ১৬০ জনের৷ তার মধ্যে রয়েছেন এক ভারতীয় মহিলা। এখনও হামলার দায় স্বীকার করেনি কেউই৷ তবে, সন্দেহের তির ব্ল্যাক টাইগার বা কুখ্যাত এলটিটিই-র দিকে৷ টুইট করে বিস্ফোরণে নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি, রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ আরও অনেকে। গোটা দেশ তথা বিশ্ব সমস্বরে তীব্র নিন্দা করেছে এই হামলার। সরব হয়েছেন বলিউড সেলিব্রিটিরাও।

[আরও পড়ুন:  ‘যদি একটু তাকাস’, রুক্মিনীর কাছে মিষ্টি সুরে আবেদন দেবের!]

সকালের এহেন ঘটনার পর অনেক অভিনেতা-অভিনেত্রীরাই নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র ধিক্কার জানিয়ে পোস্ট করেছেন। সমবেদনা জানিয়েছেন বিস্ফোরণে নিহতদের পরিবারকে। সেই তালিকায় রয়েছে অনুষ্কা শর্মা, জ‍্যাকলিন ফার্নান্ডেজ, রবিনা টন্ডন থেকে মাধবন, অভিষেক বচ্চন, দিয়া মির্জা, নিমরত কৌর, দক্ষিণী অভিনেত্রী সামান্থা আক্কিনেনি, পরিচালক মধুর ভান্ডারকর, সিদ্ধার্থর মতো আরও অনেক বলি সেলেবরাই।

অভিনেত্রী জ্যাকলিনের আসল দেশ শ্রীলঙ্কা। তাই ঘটনার পরই তড়িঘড়ি নিজের টুইটারে শোকপ্রকাশ করেন। অভিনেতা বিবেক ওবেরয়, যিনি আপাতত মোদি বায়োপিকের জন্য সবসময়েই শিরোনামে, টুইট করে শোকবার্তা জানিয়েছেন তিনিও।

 

[আরও পড়ুন:  ফের রাজ চক্রবর্তীর ছবিতে জিৎ-কোয়েল জুটি, টিজারে বাড়ল কৌতূহল]

প্রসঙ্গত, গ্রীষ্মকাল মানেই শ্রীলঙ্কায় পর্যটকদের সমাগম। কিন্তু ভয়াবহ এই ঘটনার পর থেকে চিন্তার ভাঁজ পর্যটন সংস্থার আধিকারিকদের কপালে৷ গ্রীষ্মের ভরা মরশুমে পর্যটকদের আনাগোনা বন্ধ থাকলে ধাক্কা খাবে দেশের পর্যটন সংস্থার অর্থনৈতিক দিক৷ এছাড়াও, ভারতের প্রতিবেশী দেশ হওয়ায় বলিউড তথা দক্ষিণের অনেক ছবির শুটিং-ই শ্রীলঙ্কায় হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে, বলি তথা টলি ইন্ডাস্ট্রির প্রযোজকদের শিডিউল বাতিলে যে বেশরকম ধাক্কা পড়বে পকেটে, তা বলাই বাহুল্য।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement