৯ মাঘ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সন্দীপ চক্রবর্তী: ফের জাতীয় স্তরে সম্মানিত বাংলা। ১০০ দিনের কাজে আবার প্রথম পুরস্কার পাচ্ছে এই রাজ্য। শনিবার ফেসবুকে এই প্রাপ্তির কথা ঘোষণা করে রাজ্যবাসীকে অভিনন্দন, শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সর্বভারতীয় স্তরে কেন্দ্রের এই প্রকল্পের কাজে প্রথম ও দ্বিতীয় হয়েছে যথাক্রমে বাঁকুড়া ও কোচবিহার জেলা। এছাড়া দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলপিও ভাল পারফরম্যান্সের তালিকায় রয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

১০০ দিনের কাজে পশ্চিমবঙ্গ বরাবরই এগিয়ে। এর আগেও জাতীয় স্তরে বাংলার এই পারফরম্যান্স যথেষ্ট প্রশংসিত হয়েছে। সেই সাফল্যের পথ ধরেই আরও কিছুটা এগিয়ে গেল এরাজ্য। ভারত সরকারের গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের বিচারে চলতি বছরও ১০০ দিনের কাজে এক নম্বরে রয়েছে বাংলা। কেন্দ্রের এই প্রকল্পের মাধ্যমে রাজ্যের বেকার মানুষজনের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা সবচেয়ে ভালভাবে করতে পেরেছে বাংলা, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের সদিচ্ছায়। সোশ্যাল মিডিয়ায় এমনই জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলকে অকুণ্ঠ ধন্যবাদজ্ঞাপন করেছেন তিনি। কারণ, তিনি মনে করছেন যে সকলে হাতে হাত মিলিয়ে কাজ না করলে, যথাযথ পর্যবেক্ষণ না হলে ১০০ দিনের কাজে এত বড় সাফল্য আসত না। এর জন্য প্রতিটি জেলার গ্রামস্তরের কর্মী, আধিকারিকদের কৃতিত্ব দিয়েছেন মমতা।

[ আরও পড়ুন: দুর্ঘটনা রুখতে নয়া উদ্যোগ, বন্ধ লেভেল ক্রসিং দিয়ে মোটরবাইক গলালেই ঠাঁই শ্রীঘরে

গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রকের বিচারে এই প্রকল্পে বাঁকুড়া এবং কোচবিহারের স্থান সারা ভারতের মধ্যে যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয়। এছাড়া বিশেষভাবে প্রশংসিত দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলপি ব্লকের বাবুরমহল গ্রাম পঞ্চায়েত। এটা খুব বড় সাফল্য বলেই মনে করা হচ্ছে। এর আগেও বারবার ১০০ দিনের কাজে বাংলা যে এগিয়ে, সেই স্বীকৃতি মিলেছে কেন্দ্রের তরফে। পরপর তিনবছরই এভাবে প্রশংসিত হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। এবারও জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্তিতে ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার উৎসাহ বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে।

[ আরও পড়ুন: ভুয়ো সিবিআই পরিচয়ে মণিপুরের মুখ্যমন্ত্রীর ভাইকে অপহরণ, চাঞ্চল্য নিউটাউন]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং