৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ব্যর্থতা ঝেড়ে ঘুরে দাঁড়াল চিন, একদিনে ৯ নজরদারি স্যাটেলাইটের সফল উৎক্ষেপণ ‘ড্রাগনের’

Published by: Paramita Paul |    Posted: September 15, 2020 7:02 pm|    Updated: September 15, 2020 7:05 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই ঘুরে দাঁড়াল চিন (China)। দু’দিন আগেই মুখ থুবড়ে পড়েছিল বেজিংয়ের রিমোট সেনসিং উপগ্রহ। এবার একধাক্কায় ৯টি কৃত্রিম উপগ্রহকে (Satellite) পৃথিবীর কক্ষপথে পাঠাল তাঁরা। যাদের মূল কাজ বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে উঁকিঝুঁকি দিয়ে, খুঁটিনাটি তথ্য জিনপিং সরকারের হাতে পৌঁছে দেওয়া।

চিনা সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ২২ মিনিট নাগাদ পশ্চিম প্রশান্তমহাসাগরীয় ‘ইয়েলো সি’ থেকে এই কৃত্রিম উপগ্রহগুলির উৎক্ষেপণ করেছে চিন। জাহাজের ডেক থেকে শক্তপোক্ত প্রপেল্যান্ট ক্যারিয়ার রকেটে চাপিয়ে এগুলি মহাকাশে পাঠানো হয়। এই ৯টি স্যাটেলাইট লং মার্চ-১১ পরিবারভুক্ত। কৃত্রিম উপগ্রহগুলির প্রস্ততকারক চিনের চ্যাংগুয়াং স্যাটেলাইট টেকনোলজি।

ওয়াকিবহাল মহল বলছে, এই উপগ্রহগুলি মূলত ‘অর্থ অবজারভেশন স্যাটেলাইট’। কাজ, নজরদারি চালানো। অর্থাৎ পৃথিবীর কোন প্রান্তে কী হচ্ছে, আবহাওয়া খুঁটিনাটি থেকে বিভিন্ন দেশের সীমান্তে কী হচ্ছে, তা নিমেষে জিনপিং সরকারের হাতে পৌঁছে দেবে এই উপগ্রহগুলি। পৃথিবীর কক্ষে বসেই নিখুঁত ছবি তুলবে তারা। জানা গিয়েছে, নয়টির মধ্যে তিনটি ভিডিও স্যাটেলাইট। অর্থাৎ মহাকাশ থেকে উঁকিঝুঁকি দিয়ে পৃথিবীর কোথায় কী হচ্ছে তার ভিডিও তুলে পাঠাতে পারবে গ্রাউন্ড স্টেশনে। বাকি ছ’টি পুশ-ব্রুম স্যাটেলাইট। এই কৃত্রিম উপগ্রহগুলি সূর্যের আশপাশেও নজর রাখবে। যা ভবিষ্যতে সূর্য অভিযানে সাহায্য করবে।

[আরও পড়ুন : শুকতারায় প্রাণ? শুক্রগ্রহের মেঘের রাসায়নিক বিশ্লেষণ করে রোমাঞ্চিত বিজ্ঞানীরা]

প্রসঙ্গত, রবিবার একটি অপটিক্যাল রিমোট সেন্সিং স্যাটেলাইট (Remote-sensing Satellite) নির্দিষ্ট কক্ষপথে স্থাপন করতে পারেননি না চিনের বিজ্ঞানীরা। প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে এই মিশন ব্যর্থ হয়েছে বলে বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছিল বেজিং (Bejing)। সূত্রের খবর, এ নিয়ে ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে তদন্ত। প্রসঙ্গত, চলতি বছরে নির্দিষ্ট কক্ষপথে উপগ্রহ স্থাপনের ক্ষেত্রে এটা ছিল চতুর্থ ব্যর্থতা। ২০২০ সালের শুরুতেই এই উপগ্রহ কক্ষপথে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু করোনা মহামারীর জেরে ইউহানে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। তাই সেসময় উৎক্ষেপণ পিছিয়ে গিয়েছিল। তারপর ফের উৎক্ষেপণ ব্যর্থ হয়। কিন্তু সেই ক্ষতি একেবারে পুষিয়ে নিল ড্রাগনের দেশ।

[আরও পড়ুন : কীভাবে ফুসফুসে হামলা করছে করোনা? ছবি প্রকাশ করলেন বিজ্ঞানীরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement