BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ৮ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

ডেডলাইন অক্টোবর, সাধারণের জন্য মিলবে করোনা প্রতিষেধক, দাবি রাশিয়ার

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: August 2, 2020 3:15 pm|    Updated: August 2, 2020 3:19 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রতিযোগিতা একেবারে জোরকদমে। কে কত আগে করোনার  (Coronavirus) প্রতিষেধক বাজারে আনতে পারে, তার দৌড়ে গতি বাড়াচ্ছে রাশিয়া, ব্রিটেন, আমেরিকা। রাশিয়ার দাবি, অক্টোবরে গণহারে শুরু হবে প্রতিষেধক দেওয়ার কাজ। আমেরিকার আশ্বাস, এ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কার্যকরী আর নিরাপদ প্রতিষেধকটি আনবে তারাই। আর সবচেয়ে আগে এ বিষয়ে কাজ শুরু করা ইংল্যান্ড বলছে, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং ব্রিটিশ-সুইডিশ সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে তৈরি প্রতিষেধকের শেষ ধাপের কাজ চলছে। তাতে পাশ করলেই বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু হবে। তবে বাজারে আসতে আসতে এ বছর পেরিয়ে যাবে।

এই প্রতিযোগিতার মাঝে রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী দাবি করলেন, অক্টোবরেই তাঁরা দেশের মানুষের উপর প্রয়োগ করবেন করোনার ভ্যাকসিন (Vaccine)। গত মাসেই রুশ বিজ্ঞানীরা দাবি করেছিলেন, তাঁদের তৈরি প্রতিষেধকের সব ক’টি ধাপে পরীক্ষামূলক প্রয়োগের পালা শেষ। ফলাফল সন্তোষজনক। এরপর গণহারে প্রতিষেধক প্রয়োগের পথে হাঁটা যেতেই পারে। এই মাসে রেগুলেটরি অথরিটি থেকে অনুমোদন মিলবে। তারপর বাকি কাজ শেষ করে অক্টোবরে প্রথম দফায় রাশিয়ার চিকিৎসক এবং শিক্ষকদের উপর প্রয়োগ করা হবে প্রতিষেধকটি। জানিয়েছেন রুশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো। সেই লক্ষ্যে এগোচ্ছেন সে দেশের বিজ্ঞানীরা। মস্কোর গ্যামলিয়া ইনস্টিটিউটে এই কাজ চলছে।

[আরও পড়ুন: ভারতকে বার্তা দিতে বিতর্কিত মানচিত্র এবার রাষ্ট্রসংঘ ও Google-কে পাঠাচ্ছে নেপাল]

রাশিয়ার এই দাবির অবশ্য সেভাবে আমল দিতে নারাজ আমেরিকা। মার্কিন সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ তথা ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ অ্যালার্জি অ্যান্ড ইনফেকশন ডিজিসের (NIAID) ডিরেক্টর ডক্টর অ্যান্টনি ফাউচির মন্তব্য, ”আমি বিশ্বাস করি না যে আমাদের আগে কেউ বিশ্বকে করোনা প্রতিষেধক উপহার দিতে পারবে। রাশিয়া, চিন সবাই এখনও এটা নিয়ে পরীক্ষানিরীক্ষার স্তরে আছে।”

[আরও পড়ুন: করোনা ভ্যাকসিন জোগান দেবে আমেরিকা, বিশ্ববাসীকে আশ্বাস ট্রাম্পের]

জানা গিয়েছে, এই মুহূর্তে বিশ্বে অন্তত ২০টি করোনা প্রতিষেধক পরীক্ষার পর্যায়ে আছে। চূড়ান্ত সাফল্য এখনও অধরা। তারই মধ্যে অবশ্য খানিকটা এগিয়ে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি ভ্যাকসিন ChAdOx1. এটি নিরাপদ বলে ইতিমধ্যেই রিপোর্ট প্রকাশ করে জানিয়েছেন গবেষকরা। বহু ক্ষেত্রে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তুলতে সক্ষম, রিপোর্টে তাও উল্লেখ আছে। এখন শেষ মুহূর্তের ট্রায়াল চলছে। তাতে পাশ করলেই বাজারে আসবে ChAdOx1. তার আগেই কি রাশিয়ার ভ্যাকসিন মিলবে? এ প্রশ্নের উত্তর পেতে গেলে অক্টোবর পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement