BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিতর্কিত মন্তব্যের জের, মঙ্গলবার পর্যন্ত অনুব্রতকে নজরবন্দির নির্দেশ কমিশনের

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: April 28, 2019 9:29 pm|    Updated: April 28, 2019 9:29 pm

An Images

নন্দন দত্ত, ভাস্কর মুখোপাধ্যায়: সংবাদ প্রতিদিনের খবরের জের। বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে ভোটকর্মী ঐক্যমঞ্চের দাবি মেনে মঙ্গলবার সকাল ৭ টা পর্যন্ত অনুব্রত মণ্ডলকে নজরবন্দি করার নির্দেশ দিল নির্বাচন কমিশন। রবিবার সন্ধে থেকেই কার্যকর হয়েছে এই নির্দেশ। অনুব্রতর খাস তালুকে তাঁর নজরবন্দি হওয়ার প্রভাব ভোটবাক্সে ঠিক কতটা পড়বে, তা ভাবাচ্ছে দলকে। তবে এসবকে পরোয়া করেন না বলেই জানিয়েছেন বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি। 

[আরও পড়ুন: তৃণমূলের প্রচারে নজর কাড়ছেন ‘নানা-শাহরুখ’রা, সংলাপে মাত জঙ্গলমহল]

বৃহস্পতিবার সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটালের ফেসবুক লাইভে বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেছিলেন,”এবার ভোটেও উন্নয়ন রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকবে। মাছি গলতে দেব না। বিরোধী এজেন্টদেরও বসতে দেব না।”  তাঁর এই মন্তব্য প্রকাশ্যে আসার পরই শুরু হয় বিতর্ক। বীরভূমের ভোটপর্বে অনুব্রত মণ্ডলকে নজরবন্দি রাখার আবেদন জানিয়ে শনিবার কমিশনের দ্বারস্থ হন ভোটকর্মী ঐক্যমঞ্চের সদস্যরা। রবিবার সেই আবেদনকে স্বীকৃতি দিল কমিশন। এদিন বিকেলে জেলা মুখ্য নির্বাচন আধিকারিক জানিয়েছেন, কমিশনের তরফে রবিবার সন্ধে থেকে মঙ্গলবার সকাল ৭ টা পর্যন্ত তাঁকে নজরবন্দি রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। 

বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে বরাবরই সংবাদ শিরোনামে অনুব্রত মণ্ডল। এর আগেও আপত্তিকর মন্তব্যের কারণে বিভিন্ন  সমস্যার মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁকে। এমনকী, তাঁর আপত্তিকর মন্তব্যের কারণে ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনের সময়ও তাঁকে ২ দিন গৃৃহবন্দি থাকার নির্দেশ দিয়েছিল কমিশন। এবার ফের একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি। 

[আরও পড়ুন: বীরভূমের নির্বাচন পরিস্থিতি ‘শান্তিপূর্ণ’, সবদিক খতিয়ে দেখে আশ্বাস বিবেক দুবের]

এ প্রসঙ্গে অবশ্য অনুব্রত মণ্ডল আলাদা করে ভাবিত নন৷ তিনি জানিয়েছেন, “ভোটের দিন আমি বাড়িতেই থাকি। তাই আমায় নজরবন্দি করলেও তাতে আমার কিছু এসে যায় না।” এদিনও দেখা যায়, নিজের পার্টি অফিসে তিনি সমর্থকদের মধ্যে নকুলদানা বিতরণ করেছেন৷ চলতি সপ্তাহে সিউড়িতে নির্বাচনী জনসভায় গিয়ে অনুব্রত মণ্ডলকে “বাঘের বাচ্চার মতো লড়াই” করতে বলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ভোটের আগের দিন তৃণমূল শিবিরের নির্ভরযোগ্য সৈনিকের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের এই পদক্ষেপ মানুষের মধ্যে কী প্রভাব ফেলবে, তা ভাবাচ্ছে দলকে।  

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement