BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাংলায় এনআরসি করতে এলে মিলবে বিদায়ী সার্টিফিকেট, বালুরঘাটে আক্রমণাত্মক মমতা

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 19, 2019 3:29 pm|    Updated: April 19, 2019 3:29 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জ্যাকেট, সিনেমা তৈরি হয়েছে৷ এবার মোদির নামে জুতো তৈরি হবে৷ আর তা পায়ে দিয়ে ঘুরবেন আমজনতা৷ বালুরঘাটের প্রচার সভা থেকে নরেন্দ্র মোদিকে সরাসরি এতটা তীব্র আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আরও তীক্ষ্ম জবাব দিলেন এনআরসি নিয়ে৷ সভা থেকে তাঁর মন্তব্য, মোদি বাংলায় এনআরসি করতে এলে, তাঁকে দেওয়া হবে এনবিসি অর্থাৎ ন্যাশনাল বিদায়ী সার্টিফিকেট৷

[ আরও পড়ুন :  হুগলিতে প্রকাশ্যে বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, লকেটের বাড়িতে ঢুকে ভাঙচুর দলেরই একাংশের]

শুক্রবার বেলা দেড়টা নাগাদ বালুরঘাট লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী অর্পিতা ঘোষের হয়ে সভা করতে ওঠেন দলের সুপ্রিমো৷ সেখান থেকেই জনগণের উদ্দেশে আহ্বান জানান, ‘তৃণমূলকে একেকটি ভোট দেবেন, একেকটি চড় পড়বে বিজেপি নেতাদের গালে৷ আর সেটাই হবে নোটবাতিল, কর্মসংস্থান হারানো, বেকারত্ব বৃদ্ধির বিরুদ্ধে যথাযথ প্রতিবাদ৷’ অর্পিতা ঘোষকে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অর্পিতার বিরুদ্ধে অনেকে অনেক কথা বলছে৷ ওকে ভুল বুঝবেন না৷ ও লড়াকু মেয়ে৷ এখানে কাজ করতে এসে খুব বড় বিপদের মুখে পড়েছিল৷ সেখান থেকে বেঁচে ফিরেছে৷ আপনারা ওকে আবার ফিরিয়ে আনুন৷ নাটক, সংস্কৃতি জগতের সঙ্গে ও জড়িত এবং ভাল কাজও করেছে৷ অনেকদিন ধরে বলছে, বালুরঘাটে রবীন্দ্রভবন করে দিতে৷ এনিয়ে আমার সঙ্গে ঝগড়াও করে৷’ অর্পিতা ঘোষ সাংসদ হওয়ার পর বালুরঘাট এলাকায় বেশ কিছু কাজ করলেও, জনসংযোগ তেমন করেন না বলে অভিযোগ উঠেছিল৷ যার জেরে জেলা তৃণমূল নেতৃত্বের একাংশই ক্ষুব্ধ ছিলেন, এমন গুঞ্জনও শোনা গিয়েছিল৷ তাই তাঁর জয় নিয়েও তৈরি হয়েছে সংশয়৷ মমতা এদিন অর্পিতার ভূয়সী প্রশংসার মাধ্যমে আসলে সেসব গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে অর্পিতার সমর্থনে প্রচার করলেন৷

[ আরও পড়ুন : মনোনয়নে মুখোমুখি, দ্বন্দ্ব ভুলে সৌজন্য বিনিময় পার্থ-দেবলীনার]

তোপ দেগেছেন বিজেপির সাম্প্রদায়িক অশান্তি এবং ধর্ম নিয়ে বিভাজন নীতির বিরুদ্ধেও৷ মুখ্যমন্ত্রীর তীব্র শ্লেষ, ‘এখন প্রধানমন্ত্রী আর বিজেপি নেতাদের সবাই ভয় পান৷ ভাবেন, এই না দাঙ্গা বাঁধিয়ে দেয়৷ বলছে, বাংলা, ওড়িশা দখল করব৷ এই দু জায়গা দখল করে কী হবে? অন্যত্র তো বিজেপি শূন্য পাবে৷ তাহলে কীভাবে ক্ষমতায় ফিরবে?’ তাঁর চ্যালেঞ্জ, এবার আঞ্চলিক দলগুলির ফলাফল দেখে বিজেপি টের পাবে তাদের ক্ষমতা কতখানি৷ আগেও তৃণমূল সুপ্রিমো আত্মপ্রত্যয়ের সুরে জানিয়েছিলেন, দিল্লিতে আগামী সরকার গড়তে তৃণমূল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবে৷ এদিনও সেই ইঙ্গিতই তিনি দিলেন৷ বালুরঘাটের সভা সেরে গঙ্গারামপুর এবং বহরমপুরেও সভা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement